বার্তাবাংলা ডেস্ক »

৩০ জন নারীর শরীরে ইচ্ছাকৃতভাবে এইচআইভি ভাইরাস ছড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। অদ্ভুত এই অপরাধে ইতালিয় এক হিসাবরক্ষকের ২৪ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে।

বিবিসির খবরে জানা যায়, ভলেন্তিনো তাল্লুতো নামে ওই হিসাবরক্ষক কমপক্ষে ৫৩ জন নারীর সঙ্গে অরক্ষিত যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন। ২০০৬ সালে ভলেন্তিনোর শরীরে এইচআইভি ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পরও তিনি এই কাজ করেন। গত শুক্রবার বিচারক ৩৩ বছর বয়সী ভলেন্তিনোকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দেন।

ভলেন্তিনোর পক্ষে আইনজীবী বলছেন, তাঁর এই আচরণ হঠকারী। কিন্তু তিনি ইচ্ছে করে এমন কাজ করেননি।

এএফপির খবরে বলা হয়, যৌন সংসর্গের সময় সঙ্গিনীরা ভলেন্তিনোকে সুরক্ষার ব্যবস্থা নিতে বললে তিনি শারীরিক অসুবিধার কথা বলতেন। অথবা বলতেন, সম্প্রতি তিনি এইচআইভি পরীক্ষা করেছেন। তাঁর দেহে কোনো সংক্রমণ পাওয়া যায়নি।

এইচআইভি ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার পর কোনো কোনো নারী যখন ভলেন্তিনোকে দোষারোপ করেন তখন তিনি শরীরে এইডসের জীবাণু বহন করার কথা অস্বীকার করেন।

২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে ভলেন্তিনোকে আটক করা হয়।

ভলেন্তিনো আদালতকে বলেন, তাঁর মায়ের শরীরে এইচআইভি ভাইরাসের সংক্রমণ ছিল। সে সময় তার বয়স ছিল মাত্র চার বছর। ভলেন্তিনো আরও বলেন, তাঁর পরিবারকে চিনত এমন মেয়েরা বলেন তিনি অন্যদেরও এইচআইভি ভাইরাসে সংক্রমিত করতে চাইতেন। ভলেন্তিনোর ভাষ্য, যদি তাই হতো তাহলে তিনি বারে গিয়ে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতেন। এমন কোনো নারীদের নিজের জীবনে জড়াতেন না।

রোমের বিচারকেরা রায় ঘোষণার আগে ১০ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে আলোচনা করেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »