ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ১৫ জন আটক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ডিজিটাল ডিভাইসসহ ১৫ জন আটক হয়েছেন।

সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মিনহাজুল ইসলাম জানান, মোট ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি ১২ জনকে সাজা দিয়েছে। বাকি ৩ জন মাস্টারমাইন্ডকে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসসহ আটক করে সিআইডি কার্যালয়ে আনা হয়েছে। তারাই মূলত অর্থের বিনিময়ে পরীক্ষার্থীদের জালিয়াতিতে সহায়তা করতেন।

আটক ১৫ জনের মধ্যে ১৪ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- ঢাবির পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের মহিউদ্দিন রানা এবং ফলিত রসায়ন আব্দুল্লাহ আল মামুন। এর মধ্যে রানা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক।

বাকি ১২ জন হলেন- নুর মো. মাহবুব, ফরহাদুল আলম রানা, ইশরাক হোসেন রাফি, আব্দুল্লাহ আল মুকিম, রিশাদ কবির, আসাদুজ্জামান মিনারুল, ইশতিয়াক আহমেদ, জয় কুমার সাহা, রেজওয়ানা শেখ শোভা, মাশুকা নাসরীন, তারিকুল ইসলাম, নাছিরুল হক নাহিদ।

শুক্রবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরুর পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা চলাকালে তাদের আটক করা হয়।

এক হাজার ৬১০টি আসনের বিপরীতে আজকের পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন করেছিলেন ৯৮ হাজার ৫৪ জন। অর্থাৎ প্রতি আসনের জন্য লড়াই চলবে ১৬ জনের।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ৫৩টি ও ক্যাম্পাসের বাইরে ৩৩টি স্কুল-কলেজসহ মোট ৮৬টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।