চতুর্থ টেস্টেও জয়ের আশা ইংল্যান্ডের

চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজের তিনটি ম্যাচ শেষে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে আছে ইংল্যান্ড। চলমান শেষ টেস্ট ড্র করলেও স্বাগতিকরা পাবে সিরিজ জয়ের স্বাদ। অন্যদিকে, সিরিজ হারের হতাশা এড়াতে হলো জয়ের কোনো বিকল্প নেই দক্ষিণ আফ্রিকার। সিরিজ নির্ধারণী এই চতুর্থ টেস্টের প্রথম দুই দিনে অবশ্য ভালো অবস্থান তৈরি করেছে ইংল্যান্ড। জেমস অ্যান্ডারসনের দারুণ বোলিংয়ে ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টেও জয়ের আশা জেগেছে ইংল্যান্ডের।

প্রথম ইনিংসে জনি বেয়ারস্টোর ৯৯, বেন স্টোকসের ৫৮, জো রুটের ৫২ রানের ইনিংসগুলোতে ভর করে ইংল্যান্ড সংগ্রহ করেছিল ৩৬২ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা পড়েছে ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে। বড় কোনো ইনিংস খেলতে পারেননি প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা। সর্বোচ্চ ৪৬ রানের ইনিংস এসেছে টেমবা বাভুমার ব্যাট থেকে। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোরবোর্ডে জমা হয়েছে ২২০ রান। প্রথম ইনিংসে এখনো তারা পিছিয়ে আছে ১৪২ রানে।

দারুণ বোলিং করে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ভুগিয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন। ১৫ ওভার বল করে মাত্র ৩৩ রানের বিনিময়ে নিয়েছেন চারটি উইকেট। আরেক পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড পেয়েছেন দুটি উইকেট। অফস্পিনার মইন আলির ঝুলিতেও জমা হয়েছে দুটি উইকেট।

প্রথম ইনিংসে এখন পর্যন্ত চার উইকেট নিয়ে দারুণ এক মাইলফলকের পথে অনেকখানি এগিয়ে গেছেন অ্যান্ডারসন। আর মাত্র ১৬টি উইকেট নিতে পারলেই ইংল্যান্ডের প্রথম বোলার হিসেবে টেস্টে পাঁচশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করতে পারবেন এই ডানহাতি পেসার। ক্রিকেট ইতিহাসেই যে উচ্চতায় যেতে পেরেছেন মাত্র পাঁচজন বোলার।