রিয়ালকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে বার্সা

প্রাক–মৌসুমে আজ ছিল বার্সেলোনার শেষ ম্যাচ। গতবারের লা লিগা আর চ্যাম্পিয়নস লিগের জোড়া চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদের কাছ থেকে তারা দুটি মুকুটই কেড়ে নিতে চাইবে। আর রিয়ালকে হারানোর এই মিশন শুরুর আগে প্রস্তুতির শেষটা বার্সেলোনা টানল রিয়ালকে হারিয়েই। যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামিতে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপে (আইসিসি) এল ক্লাসিকোতে আজ রিয়ালকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে বার্সা।

লড়াই হয়েছে বেশ জমজমাট। সাত মিনিটের মধ্যে বার্সেলোনার জোড়া গোল যদি একপেশে এল ক্লাসিকোর ভয় জাগায়, প্রথমার্ধ শেষের ৯ মিনিট আগেই সেই দুটি গোলই গুনে গুনে শোধ করে রিয়ালও বুঝিয়ে দিয়েছে, লড়াই তা সে যেখানেই হোক যেকোনো ম্যাচে, এল ক্লাসিকো এল ক্লাসিকোই। প্রীতি ম্যাচের খোলসটা তাই খুলে পড়েছিল দ্রুতই। প্রধমার্ধ ২-২ গোলে শেষ হওয়ার পর এমন সমান-সমানে লড়াইয়ে অনেক সময়ই যেটা হয়, আজও তা-ই হলো। জয়–নির্ধারক গোল এল অপ্রত্যাশিত মুখের কাছ থেকে। এবার সার্জিও রামোস নয়, জলের সিলটা মেরে দিলেন জেরার্ড পিকে।

নেইমারের বার্সা ছাড়ার গুঞ্জনে আজ এল ক্লাসিকোতে জয় এল নেইমারের গোল–অবদান ছাড়াই। এটা বিশেষ করে উল্লেখ করতে হচ্ছে এ জন্যই, পিএসজিতে চলে যাচ্ছেন—এমন গুঞ্জরণ বাতাসে ভাসার পর থেকে নেইমারের পা থেকে যেন জাদুকরি সব গোলের দেখা পাচ্ছিল বার্সেলোনা। আগের দুটি প্রাক–মৌসুম ম্যাচেই নেইমারের জাদুতে জিতেছে বার্সেলোনা।
৩ ও ৭ মিনিটে লিওনেল মেসি ও ইভান রাকিতিচের গোল ২-০ করে ফেলেছিল। ১৪ মিনিটে কোভাচিচ আর ৩৬ মিনিটে আসেনসিও সমতা ফিরিয়ে আনেন। এল ক্লাসিকো বলেই হয়তো রামোসকে আজ প্রথমবারের মতো দেখা গেল একাদশে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ছাড়া বাকি সব সেরা অস্ত্রকেই মাঠে নামিয়ে দিয়েছিলেন জিনেদিন জিদান। তবে রামোসকে দর্শক বানিয়ে ৫০ মিনিটে জয়সূচক গোল পিকের কাছ থেকে।
এবার গোলদাতার খাতায় অবশ্য নেইমারের নাম নেই। যদিও ৫৫ মিনিটে দারুণ এক গোলের সুযোগ হারিয়েছেন, যে গোলটা এল ক্লাসিকোর রোমাঞ্চ ওখানেই শেষ করে দিত। গোলটা হয়নি বলে আগুন দামের টিকিট কেটে খেলা দেখতে আসা দর্শকদের পয়সা উশুল হলো। ইস্কোও প্রায় গোল শোধ করে দিয়েছিলেন। সিলেসেনের চওড়া হাত বার্সাকে বাঁচিয়েছে। সব মিলিয়ে রোমাঞ্চকর খেলাই হলো বেশ।
এই জয়ে ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়ে আইসিসির যুক্তরাষ্ট্র পর্বের ট্রফি জিতল বার্সেলোনা। আর প্রাক–মৌসুমে এই পুরো টুর্নামেন্ট রিয়াল শেষ করল একটাও জয় না পেয়ে।
বার্সেলোনা এবার ফিরে যাবে স্পেনে। সেখানে হুয়ান গাম্পার ট্রফিতে মত্যুঞ্জয়ী শাপেকোয়েন্সের বিপক্ষে খেলবে। রিয়াল যুক্তরাষ্ট্রে খেলবে আরও একটি প্রীতি ম্যাচ। এরপর আবার জোড়া এল ক্লাসিকো! স্প্যানিশ সুপার কাপে দুই লেগে মুখোমুখি হবে রিয়াল ও বার্সেলোনা।