বার্তাবাংলা ডেস্ক »

গলায় বিষধর সাপ ঝুলিয়ে সেলফি তোলার খায়েশ হয়েছিল ২৭ বছরের যুবক বিকাশ সিংহের। গ্রামের মন্দিরে সাপখেলা দেখাতে আসা সাপুড়েকে বুঝিয়ে-সুজিয়ে একটি গোখরা জোগাড় করেছিলেন। মুঠোফোন দিয়ে সেলফি তোলার সময়ই বিকাশের হাতে ছোবল মারে সাপটি। মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি।

এলাকার লোকজন তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যান। সময়মতো প্রতিষেধক পেয়ে এ যাত্রায় বেঁচে যান বিকাশ। তবে হাসপাতাল থেকে এখনো ছাড়া পাননি। পশ্চিমবঙ্গের বিহারের গোপালগঞ্জের থাবে থানাধীন বেদুটোলায় গত সোমবার ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, থাবে দুর্গামন্দির চত্বরে একটি দোকানে বিকাশের বাবা রামায়ণ সিংহ পূজার সামগ্রী বিক্রি করেন। বাবাকে সাহায্য করতে সোমবার দোকানে গিয়েছিলেন বিকাশ। মন্দিরের সামনে সাপের খেলা দেখাচ্ছিলেন এক সাপুড়ে। গলায় গোখরা সাপ জড়িয়ে সেলফি তোলার ইচ্ছা হয় বিকাশের। ভেবেছিলেন, তাঁর মুখের পাশে ফণা তুলে থাকবে সাপটি। আর ঠিক সেভাবেই তুলবেন সেলফি। সাপুড়ে সাপ দিতে রাজি ছিলেন না। বিকাশও নাছোড়বান্দা। শেষে ঝুলি থেকে একটি গোখরা বের করে দেন সাপুড়ে।

দুর্গামন্দিরের সামনে গলায় সাপ জড়ান বিকাশ। ছবি তোলার সময়ই হঠাৎ গোখরাটি তাঁর হাতে ছোবল মারে। জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন বিকাশ। বেহুঁশ হয়ে যান। ভিড় জমে যায়। আশপাশের লোকজন সঙ্গে সঙ্গে বিকাশকে হাসপাতালে নিয়ে যান। দ্রুত প্রতিষেধক পেয়ে বেঁচে যান বিকাশ। হট্টগোলের মধ্যে সুযোগ বুঝে ‘পোষ্য’কে নিয়ে পালিয়ে যান সাপুড়ে। পুলিশ এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

গোটা বিশ্বে সেলফির নেশায় প্রাণহানির ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। এভাবে মৃত্যুর ঘটনায় প্রথম সারিতে রয়েছে ভারত। আন্তর্জাতিক সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০১৪ সালের মার্চ থেকে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত বিপজ্জনকভাবে সেলফি তুলতে গিয়ে ১২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তার ৭৬টি ঘটনা ঘটেছে ভারতেই। সূত্র: আনন্দবাজার অনলাইন

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »