বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ভারতের ১৩তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে প্রণব মুখার্জির পালা শেষ হচ্ছে ২৪ জুলাই। স্বভাবতই দিল্লির সুবিশাল রাষ্ট্রপতি ভবন ছাড়তে হবে তাঁকে। পরের দিন নতুন রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নিয়ে ওই ভবনের বাসিন্দা হতে যাচ্ছেন রামনাথ কোবিন্দ। সাবেক হওয়ার পর কোথায় থাকবেন প্রণব মুখার্জি, এক প্রতিবেদনে তা জানিয়েছে ইকোনমিক টাইমস।

বাংলাদেশের নড়াইলের জামাই প্রণব মুখার্জির পরবর্তী ঠিকানা দিল্লির ১০ রাজাজি মার্গ। সাবেক হওয়ার পর এই ভবনের বাসিন্দা ছিলেন প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এ পি জে আবদুল কালাম। ২০১৫ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এই বাড়িতেই থাকতেন।
দুই লাখ বর্গফুটের রাষ্ট্রপতি ভবনে ৩৪০টি কক্ষ আছে। সেটি ছেড়ে প্রণব মুখার্জি যে বাড়িতে যাচ্ছেন, তার আয়তন প্রায় ১২ হাজার বর্গফুট। বাড়িটি মেরামতের কাজ প্রায় শেষের দিকে। ওই বাড়ির বড় একটি অংশ প্রণব মুখার্জির সংগ্রহে থাকা বই রাখার উপযোগী করে তোলা হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

রাষ্ট্রপতি ও রাষ্ট্রপতি ভবনের দেখভালের জন্য দুই শতাধিক কর্মী থাকেন। সাবেক হওয়ার পর প্রণব মুখার্জির এই সুবিধা আর থাকছে না। এ ছাড়া সার্বক্ষণিক ব্যবহারের জন্য থাকা বুলেটপ্রুফ মার্সিডিস বেঞ্চ সুবিধাও আর পাবেন না তিনি। সাবেক রাষ্ট্রপতি হিসেবে তিনি কী কী সুবিধা পাবেন, সে ব্যাপারে উল্লেখ আছে রাষ্ট্রপতির জন্য নির্ধারিত ‘প্রেসিডেন্ট ইমলিউমান্টস অ্যাক্ট ১৯৫১’-তে।
এটি অনুযায়ী, একজন সাবেক রাষ্ট্রপতি বিনা ভাড়ায় সুসজ্জিত বাংলো বাড়িতে থাকবেন। এটি রক্ষণাবেক্ষণের খরচ রাষ্ট্র বহন করবে। তিনি দুটি টেলিফোন পাবেন। এর মধ্যে একটিতে ইন্টারনেট সুবিধা থাকবে এবং অন্য মোবাইল ফোনে সারা দেশে রোমিং ফ্রি থাকবে। এর পাশাপাশি তিনি একটি গাড়ি, একজন ব্যক্তিগত সচিব, একজন অতিরিক্ত সচিব, একজন ব্যক্তিগত সহকারী ও দুজন অফিস সহকারী পাবেন। অফিস চালানোর খরচ বাবদ তিনি প্রতি মাসে পাঁচ হাজার টাকা করে বছরে ৬০ হাজার টাকা পাবেন। আমৃত্যু তাঁর চিকিৎসা খরচ রাষ্ট্র বহন করবে। এর বাইরে তিনি একজন সঙ্গীকে নিয়ে উড়োজাহাজ, ট্রেন ও স্টিমারে সবচেয়ে ভালো আসনে ভ্রমণ করতে পারবেন। অবসরকালীন ভাতা হিসেবে তিনি প্রতি মাসে ৭৫ হাজার রুপি পাবেন। ভারতের ইতিহাসে প্রথম বাঙালি রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে সাবেক হয়ে এই সুবিধাগুলো পাবেন প্রণব মুখার্জি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »