বার্তাবাংলা ডেস্ক »

লিউকেমিয়া এবং আরো কিছু ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন পদ্ধতি আবিষ্কারের কথা জানিয়েছে মার্কিন সরকারের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)।
এফডিএ’র এক কমিটি জানায়, নতুন এ চিকিৎসা পদ্ধতিটি শুধু এফডিএ-র অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এরপর বাজারে আসবে এক বহুজাতিক সংস্থা- আবিষ্কৃত নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি। এ পদ্ধতিই হবে বাজারে আসা প্রথম জিন থেরাপি।
জিন থেরাপির মাধ্যমে লিউকেমিয়া আক্রান্ত রোগীর দেহ থেকে নিষ্কাশিত হবে উপকারী টি-কোষ। তার জিন বদলে সেই টি-কোষ আবার প্রতিস্থাপন করা হবে রোগীর দেহে।
জিন-বদলানো এই টি-কোষ লড়াই করে হারাবে ক্যান্সারকে। যেহেতু কোষ মারবে রোগকে, তাই এই পদ্ধতির নাম দেওয়া হয়েছে ‘জীবন্ত ওষুধ’।
এই চিকিৎসা পদ্ধতিটির গবেষণা করা হয় আমেরিকার পেনসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরিতে।
নতুন যে পদ্ধতিতে চিকিৎসা করা হবে লিউকেমিয়া এবং আরো কিছু ক্যান্সারের, তা ওই বহুজাতিক সংস্থার বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা চালিয়েছিলেন ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে ২০১৬-র আগস্ট পর্যন্ত ৬৩ জন রোগীর মধ্যে।
এর মধ্যে ৫২ জন রোগী (৮২.৫%) সেরে উঠেছেন, মারা গেছেন ১১ জন। যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের দিকে তাকিয়ে গবেষকরা খুবই উৎসাহী।
এফডিএ-র বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্যান্সারের দুই চিকিৎসা কেমোথেরাপি ও তেজস্ক্রিয়তায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকলেও নতুন পদ্ধতির চিকিৎসায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বেশ কম।
নতুন এ চিকিৎসার খরচ পড়বে তিন লাখ ডলার। যাই হোক নতুন চিকিৎসা যে রোগ নিরাময়ের আশা জাগাচ্ছে, সেটা বিজ্ঞানের এক বড় পদক্ষেপ।
বহুজাতিক সংস্থাটির মুখপাত্র জানিয়েছেন, শুধু আমেরিকায় নয়, বিভিন্ন দেশেই নতুন চিকিৎসা
ছড়িয়ে দেওয়ার অপেক্ষায় দিন গুণছেন তারা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »