বার্তাবাংলা ডেস্ক »

এস এ চৌধুরী, মৌলভীবাজার:: আজ সোমবার বিএনপির দেশব্যাপী ডাকা হরতাল-  জেলার সর্বত্র ঢিলেঢালাভাবে পালিত হয়েছে। সরজমিনে হরতালের সমর্থনে মিছিল,সভা, পিকেটিং হয়নি এবং কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। অফিস আদালতে লোকজনের উপস্থিতি অন্যান্য দিনের চেয়ে কম ও  দূরপাল্লার বাস ব্যতীত হালকা যানবাহন আংশিক চলাচলসহ দোকানপাট খোলা  থাকলেও জনজীবনে দুর্ভোগ সৃষ্ঠি হয়েছিল। অনেকের নানান কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলেও-বিএনপির ডাকা টানা দুই দিনের হরতালের আজ প্রথম দিনে সব পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। বাস চালক ও সিএনজি চালকদের মাথায় হাত দিয়ে ষ্ট্যান্ডে বসে গল্পগুজব করে অলস সময় পার করতে দেখা গেছে। আতংকিত হয়ে অনেকেই সিএনজি বের করেননি। আজকের হরতাল প্রসঙ্গে জেলার প্রতিটি থানার ওসির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে- সদর থানার ওসি বলেন, হরতালে পিকেটিংয়ের সময় শহরের কোর্ট রোডের চৌমোহনা থেকে বরাত মিয়া (৩০) নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে এবং কোনো প্রকার সহিংসতা ছাড়াই পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। শ্রীমঙ্গল থানার ওসি বলেন,কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই পরিস্থিতি শান্ত ছিল। কমলগঞ্জ থানার ওসি বলেন, আজ কমলগঞ্জের কোথাও হরতালের সমর্থনে কোনো মিছিল মিটিং পিকেটিং হয়নি এবং কোনো আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল্র। কুলাউড়া থানার ওসি বলেন, হরতালে কোথাও কোনো অঘটন ছাড়াই সবকিছু স্বাভাবিক ছিল। রাজনগর থানার ওসি বলেন,হরতালে কোনো প্রকার অঘটন ছাড়াই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রয়ে ছিল।  জুড়ী থানার ওসি বলেন,হরতালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। বড়লেখা থানার ওসির মুঠোফোনে একাধিকবার রিং হলেও ফোন ধরেননি ।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »