বার্তাবাংলা ডেস্ক »

IMG_4096
আহসান হাবীব,জাবিঃ
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ রফিক-জব্বার হল ও মওলানা ভাসানী হলে তল্লাশী চালিয়ে বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্র ও ৬ রাউন্ড গুলিসহ একটি ৯ এম.এম পিস্তল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সকাল ৯টার দিকে ৩ ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করা হয়েছে। যদিও উপাচার্য দাবি করেন আটককৃতরা ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত নয়, তাদের দাবি তারা ছাত্রলীগ কর্মী।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ বদরুল আলমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ভোর সাড়ে ৬টায় শহীদ রফিক-জব্বার হলে তল্লাশী চালিয়ে ঐ হলের ছাত্রলীগ কর্মী মাজেদুর রহমান সীমান্ত(হিসাববিজ্ঞান বিভাগ, ৪০তম ব্যাচ) এর কক্ষ থেকে বিপুল পরিমান রড,পাইপ ও কিরিচ জব্দ করে এবং তাকে আটক করে।

পরবর্তীতে সকাল সাড়ে ৭টা থেকে মওলানা ভাসানী হলে ঘন্টাব্যাপী তল্লাশী চালিয়ে ঐ হলের ১০৮ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী বোরহান উদ্দিন ইমন (ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ,৩৮ তম ব্যাচ) কে ৬ রাউন্ড গুলি ও একটি ৯ এম.এম পিস্তলসহ আটক করে। পরবর্তীতে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী একই হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী মো. মুর্শিদুর রহমান ( ইংরেজি বিভাগ,৩৮ তম ব্যাচ) কে আটক করা হয়।

এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, আটককৃতরা কেউ ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত নয়। এরা ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী।

জাবি ছাত্রলীগ সভাপতি মাহমুদুর রহমান জনি বলেন, এরা ছাত্রলীগের কেউ না। ছাত্রলীগ এ ঘটনার দায়ভার গ্রহণ করবে না।

তবে আটককৃতদের বিভিন্ন সময়ে ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে বলে ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়।

মামলার বিষয়ে প্রক্টর ড. সোহেল আহমেদ জানান, অস্ত্র মামলা দায়ের করা হতে পারে।

উল্লেখ্য, রোববার রাতে কথা কাটাকাটির জের ধরে শহীদ রফিক-জব্বার হল ও মওলানা ভাসানী হলের ছাত্রলীগ কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয় এবং এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই পুলিশ এই তল্লাশী চালায়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্যসমূহ »

মন্তব্য করুন »