বার্তাবাংলা ডেস্ক »

প্রতিবেশী আরব দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞা থেকে রেহাই পেতে চাইলে কাতারকে টেলিভিশন চ্যানেল আল-জাজিরা বন্ধ ও ইরানের সঙ্গে সম্পর্কের সীমারেখা টানাসহ ১৩টি শর্ত মানতে হবে। শর্তগুলো পূরণে ১০ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে।

কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নকারী সৌদি আরব, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইন আজ শুক্রবার এ শর্তগুলোর তালিকা দিয়েছে দোহাকে।

অন্য শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে তুর্কি সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করা ও অন্যান্য আরব দেশে নিষিদ্ধ সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করা।

সাতটি দেশ সম্প্রতি কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। ওই দেশগুলোর অভিযোগ, দেশটি সন্ত্রাসবাদে আর্থিক সহায়তা ও মদদ দিয়ে আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা তৈরি করছে। তবে দোহা কর্তৃপক্ষ বরাবরই এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। তবু দেশটি দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে নজিরবিহীন কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক অবরোধের মুখে পড়ে আছে। ফলে উপসাগরীয় অঞ্চলে সাম্প্রতিক দশকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জটিল রাজনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছে।

প্রতিবেশী দেশগুলোর বেঁধে দেওয়া শর্তের তালিকা সম্পর্কে কাতার কোনো তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুলরহমান আল-থানি বলেছেন, শাস্তিমূলক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আগ পর্যন্ত তাঁরা আলোচনা চালিয়ে যাবেন।

সৌদি আরব ও সহযোগী দেশগুলো চায় কাতারের চ্যানেল আল জাজিরা ও তার অধিভুক্ত সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ হোক। আরবি স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলোর মধ্যে কাতারভিত্তিক আল জাজিরা সবচেয়ে জনপ্রিয়। উপসাগরীয় প্রতিবেশী দেশগুলোর অভিযোগ, ইসলামপন্থী নানা আন্দোলনে আল জাজিরা মদদ দেয়। তবে চ্যানেলটির কর্তৃপক্ষ এ রকম অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
সূত্র: বিবিসি

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »