বার্তাবাংলা ডেস্ক »

চট্টগ্রাম নগরীতে ছিনতাইয়ের সময় চলন্ত রিকশা থেকে পড়ে গুরুতর আহত হওয়ার ছয়দিন পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন এক তরুণী। মৃত শিরিন আক্তার (২৪) পটিয়া উপজেলার চক্রশালা এলাকার মৃত ফজলুল করিমের মেয়ে। ঈদের কেনাকাটা করতে চট্টগ্রাম নগরীর ব্যাটারি গলির বোনের বাসায় এসেছিলেন তিনি।

সোমবার রাত পৌনে ১১টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে জানান হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম।

গত ১৩ জুন নগরীর জামালখানে ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ ধরে টান দেওয়ায় রিকশা থেকে পড়ে গিয়ে আহত হয়েছিলেন শিরিন।

পুলিশ পরিদর্শক জহিরুল বলেন, “গত রোববার শিরিনকে হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়েছিল।”

শিরিনের চাচাত ভাইয়ের স্ত্রী নেবুয়াত আরা সিদ্দিকা বলেন, ১৩ জুন ইফতারের পর রিকশায় করে ভাগ্নে বৌয়ের সঙ্গে টেরিবাজার যাচ্ছিল শিরিন।

“জামালখান এলাকার আইডিয়াল স্কুল সংলগ্ন অংশে মোটর সাইকেলে আসা ছিনতাইকারীরা শিরিনের ব্যাগ ধরে টানা দিলে ভারসাম্য হারিয়ে রাস্তায় পড়ে যায় সে।”

গুরুতর আহত অবস্থায় শিরিনকে ঘটনার দিন চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে এবং পরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সর্বশেষ রোববার আনা হয় চট্টগ্রাম মেডিকেলের সিসিইউতে।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় একটি মামলা করেছে বলে জানান নেবুয়াত আরা সিদ্দিকা।

এদিকে মামলা করলেও এ ঘটনায় এখনো কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানান চকবাজার থানার ওসি নুরুল হুদা।

মঙ্গলবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য শিরিনের লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যাওয়া হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »