বার্তাবাংলা ডেস্ক »

চট্টগ্রাম নিউমার্কেট এলাকায় রাস্তার ওপর অস্থায়ী দোকান দেওয়ার সময় পুলিশের সঙ্গে হকারদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় হকারদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ২১টি ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

আজ শুক্রবার বেলা আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে নয়জন হকারকে আটক করেছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম নিউমার্কেট এলাকার জলসা সিনেমা হল থেকে শাহ আমানত মার্কেটের বিপরীত দিকের আমতল মোড় পর্যন্ত রাস্তায় বিক্রির জন্য পণ্যের পসরা নিয়ে বসার চেষ্টা করে ৫০ থেকে ৬০ জন হকার। পুলিশ বাধা দিলে হকাররা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। এ সময় পুলিশ তাঁদের ছত্রভঙ্গ করতে ফাঁকা গুলি ছোড়ে। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে পুলিশের সঙ্গে হকারদের থেমে থেমে সংঘর্ষ চলে। এ সময় রেয়াজউদ্দিন বাজার, শাহ আমানত ও হকার্স মার্কেটের মূল ফটক বন্ধ করে দেওয়া হয়। সংঘর্ষের কারণে প্রায় দেড় ঘণ্টা সব ধরনের গাড়ি চলাচল বন্ধ ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী আহাদ চৌধুরী বলেন, ৫০ থেকে ৬০ জন হকার জলসা সিনেমা হলের সামনে থেকে আমতল মোড় রাস্তার একাংশ দখলের চেষ্টা করেন। পুলিশ সদস্যরা তাঁদের সরিয়ে দেওয়ার জন্য এগিয়ে আসতেই হকাররা পুলিশের দিকে বৃষ্টির মতো ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। তখনই গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দেখে মনে হয়েছে ইটগুলো আগে থেকে মজুত করে রাখা হয়েছিল। কয়েকজন হকার বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন দোকানের দরজা ও দেয়ালে বাড়ি দিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করে। পুলিশও পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ওপরের দিকে ফাঁকা গুলি ছোড়ে। তখন আতঙ্কজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

রেয়াজউদ্দিন বাজারের ফুটপাতের হকার সাহাব উদ্দিন বলেন, রোজার মাস শেষ হয়ে যাচ্ছে। অনেক হকার ব্যবসা করার সুযোগ পাচ্ছে না। তাঁরা রাস্তায় মালামাল নিয়ে বসার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এরপর দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রাস্তার ওপরে ভাঙা ইট ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। প্রায় দুই ঘণ্টা পর নিউমার্কেট এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। গাড়ি চলাচলও শুরু হয়। বৃষ্টির কারণে ফুটপাতের হকাররা প্লাস্টিক দিয়ে নিজেদের মালামাল ঢেকে রেখেছেন। সংঘর্ষের পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নয়জন হকারকে আটক করেছে। তাঁদের কোতোয়ালি থানা ভবনে রাখা হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসিমউদ্দিন বলেন, ‘পথচারীদের কষ্টের কথা চিন্তা করে নিউমার্কেট এলাকায় রাস্তার ওপর হকারদের বসতে দিইনি। ১৯ রমজান পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হকাররা ফুটপাতে নিজেদের ব্যবসা করেছে। কিন্তু হঠাৎ করে হকাররা রাস্তায় মালামাল নিয়ে বসার চেষ্টা করলে আমরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করি। তখনই পুলিশের দিকে তাঁরা ইটপাটকেল ছুড়ে মারে। পুলিশ গুলি নয়, ২১টি রাবার বুলেট ছুড়েছে। এ ঘটনায় নয়জন আটক হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »