অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ না করলে যা হতে পারে শরীরে

বর্তমান সময়ে রোগ বৃদ্ধির পাশাপাশি অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার প্রবণতাও বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণে। অ্যান্টিবায়োটিক কোর্সের একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা থাকে যার মধ্যে কোর্স শেষ করতে হয়। কিন্তু আমরা অনেকেই ইচ্ছামত অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ খেয়ে থাকি। অর্থাৎ এর কোর্স শেষ করি না। কিন্তু এর পরিণাম যে কত ভয়াবহ তা আমরা জানি না। আসুন জেনে নেই অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স সম্পূর্ণ না করলে কী কী হতে পারে শরীরে।

১. ইনফেকশন ফিরে আসা
অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ করার অন্যতম প্রধান কারণ হল রোগের জীবাণুকে ধ্বংস করে দেওয়া। কোর্স শেষ করা না হলে রোগ পুনরায় ফিরে আসে। কিছুদিন বিরতি দিয়ে রোগটি আবার শরীরের দেখা দেয়।

২. ব্যাকটেরিয়া আবার নতুন করে জন্মগ্রহণ করতে পারে
অ্যান্টিবায়োটিক ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে। আপনি যদি অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ না করেন তাহলে ব্যাকটেরিয়া নতুন করে আবার জন্মানোর সুযোগ পেয়ে যাবে। আর যার কারণে একই রোগে বার বার আক্রান্ত হয়ে পড়বেন।

৩. সুস্থতায় ধীর গতি
সুস্থতা লাভ করা অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার মূল উদ্দেশ্য। তবে অনেকে একটু ভালো হয়েছে মনে হলে অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া বন্ধ করে দেয়। আর সবচেয়ে বড় ভুলটা করে থাকেন। এর ফলে রোগ তো সারেই না বরং আবার ফিরে আসে এবং সুস্থতা লাভ ধীরগতির হয়ে পড়ে।

৪. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর প্রভাব
অ্যান্টিবায়োটিক শুধু রোগ সারিয়ে তোলে না। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এর কোর্স শেষ না হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার পরিবর্তে তা কমে যায়।

৫. ঔষধের কার্যক্ষমতা নষ্ট করে ফেলা
কিছুটা সুস্থবোধ করলে অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া বন্ধ করে দিলে এর কার্যক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়। এমনকি যে সময় নিদিষ্ট করে দেওয়া থাকে সে সময় পরে অ্যান্টিবায়োটিক খেলেও ঔষধের কার্যক্ষমতা থাকে না।

৬. নির্দিষ্ট পরিমাণের অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া
চিকিৎসাশাস্ত্র মতে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের অ্যান্টিবায়োটিক শরীরে প্রবেশ না করলে অ্যান্টিবায়োটিক ঠিকমত কাজ করে না। অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স শেষ না করলে সে পরিমাণের অ্যান্টিবায়োটিক শরীরের প্রবেশ করে না। ফলে রোগ সম্পূর্ণভাবে ভাল হয় না।

৭. ওষুধের অপচয়
সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিক একসাথে সম্পূর্ণ কোর্সের ওষুধ কেনা হয়ে থাকে। যদি কোর্স শেষ করা না হয় এটি ওষুধের অপচয়ের করার সাথে সাথে আপনার অর্থেরও অপচয় করে।