মূর্তিটা সরিয়ে ইসলাম ধর্মসহ অন্যান্য ধর্মের প্রতি সম্মান করা হয়েছে

সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে ভাস্কর্য সরানোয় ইসলাম ধর্মসহ অন্য সব ধর্মের প্রতি সম্মান জানানো হয়েছে বলে মনে করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, ‘এই মূর্তিটাকে যে আমরা থেমিস বলি, সেইটার আসল রূপ এটা না। কিন্তু সেই ক্ষেত্রে এইটা কোনো মূর্তিই ছিল না বলে আমার মনে হয়। এই মূর্তিটা সরিয়ে বরং ইসলাম ধর্মসহ অন্যান্য ধর্মের প্রতি আমার মনে হয় সম্মান করা হয়েছে।’

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস ২০১৭ উপলক্ষে এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। প্রজ্ঞা আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে তামাক নিয়ন্ত্রণবিষয়ক সংবাদের জন্য গণমাধ্যমকর্মীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘আমরা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এ ধরনের মূর্তি যদি স্থাপন করতাম, তাহলে এটা আসল যে থেমিস, সেটাকে বিকৃত করা হতো। আমরা কিন্তু বিকৃত করা থেকে সরে আসতে চাই। এ ঘটনায় বাংলাদেশের কোনো ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়নি।’

ভাস্কর্য অপসারণ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধান বিচারপতির কথা হয়েছিল কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, সেটা প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতি জানেন।

এর আগে সকালে প্রজ্ঞার পক্ষ থেকে পাঁচজন গণমাধ্যমকর্মীকে তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতায় পুরস্কার দেওয়া হয়। এতে প্রিন্ট-অনলাইন বাংলা, প্রিন্ট-অনলাইন ইংরেজি ও ব্রডকাস্ট-রেডিও—এই তিনটি বিভাগে পুরস্কার দেওয়া হয়। পুরস্কার বিজয়ীরা হলেন বরিশালের স্থানীয় দৈনিক কীর্তনখোলার প্রধান প্রতিবেদক গোলাম মর্তুজা জুয়েল, দ্য ডেইলি স্টারের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক পরিমল পালমা, যমুনা টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক সুশান্ত সিনহা, যৌথভাবে একটি পুরস্কার পেয়েছেন দৈনিক জনকণ্ঠের (বর্তমানে যুগান্তরে কর্মরত) নিজস্ব প্রতিবেদক এস এ এম হামিদুজ্জামান ও বাংলা ট্রিবিউনের বাণিজ্য বিভাগের প্রধান শফিকুল ইসলাম এবং শিশু সাংবাদিকতায় বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে বিডি নিউজের হ্যালো বিভাগের সাদিক ইভান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা প্রয়োজন। এ জন্য প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। জুরিবোর্ডের প্রধান হিসেবে তিনি কীভাবে পুরস্কার বিজয়ীদের নির্বাচন করেছেন, তার একটি সংক্ষিপ্ত বর্ণনাও দেন।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দৈনিক সমকালের উপসম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন। এ ছাড়া ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোলের পরামর্শক শরিফুল আলম, আত্মার আহ্বায়ক মর্তুজা হায়দার লিটন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।