মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার সংশ্লিষ্টতা তদন্তে নতুন মোড়

২০১৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারে রাশিয়ার সংশ্লিষ্টতার তদন্ত নতুন মোড় নিচ্ছে। চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাবেক নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনের সঙ্গে রাশিয়ার সংশ্লিষ্টতা নিয়ে ইতিমধ্যে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই তদন্ত করছে। তথ্য গোপন করা বা রাশিয়ার সঙ্গে স্পর্শকাতর তথ্য বিনিময় করার প্রমাণ পাওয়া গেলে সংকটে পড়বেন মাইকেল ফ্লিন। এর জের ধরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অন্যরাও জড়িয়ে পড়েন কিনা, তা নিয়ে সরগরম রয়েছে আমেরিকার রাজনৈতিক অঙ্গন। এর মধ্যে আবার নতুন করে নাম এসেছে ট্রাম্পের জামাতা জ্যারেড কুশনারের। তবে এফবিআই বলছে, কোনো অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে তাঁর নাম আসেনি। তাঁর কাছে এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে বলে মনে করছে এফবিআই।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ওয়াশিংটন পোস্ট প্রথম এ সংক্রান্ত সংবাদ পরিবেশন করে। ৩৬ বছর বয়সী কুশনার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেয়ে ইভানকা ট্রাম্পের স্বামী। গত নির্বাচনে শ্বশুরের পক্ষে জোরালো ভূমিকা রাখার পর আলোচনায় আসেন তিনি। প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর কুশনারকে উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্প প্রশাসনের অন্যতম ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে এর মধ্যে তিনি পরিচিত হয়ে উঠেছেন।

এ মাসের শুরুতে এফবিআই প্রধান জেমস কোমিকে বরখাস্তের পর রাশিয়া তদন্ত নিয়ে নানা নাটকীয়তা শুরু হয়েছে ওয়াশিংটনে। ট্রাম্প সাবেক গোয়েন্দা প্রধানকে মাইকেল ফ্লিনের বিরুদ্ধে তদন্ত না চালানোর কথা বলেছিলেন বলে গণমাধ্যমে এসেছে। পরে এ বিষয়ে এফবিআই এর সাবেক কর্মকর্তা রবার্ট মুলারকে স্বাধীন তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।