ঈদ-যাত্রার জন্য বিআরটিসির ৯০০ বাস

আসন্ন ঈদে ঘরমুখী মানুষের জন্য সরকারের পরিবহন সংস্থা বিআরটিসির ৯০০ বাস প্রস্তুত থাকবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঈদে যাত্রীসেবা নিশ্চিত করতে কেন্দ্রীয়ভাবে নিয়ন্ত্রণকক্ষ খোলা হবে বলে মন্ত্রী জানান।

আজ বুধবার সকালে কমলাপুর বাস ডিপোতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশন ও গ্র্যাচুইটির চেক বিতরণ ও ঈদসেবা নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এসব তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে বিআরটিসির তিনটি পর্যবেক্ষণ দল কাজ করবে। এ ছাড়া সড়কে বাসের কোনো সমস্যা হলে তাৎক্ষণিকভাবে মেরামতের জন্য পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট চারটি কারিগরি দল গঠন করা হবে। এই দলগুলো টাঙ্গাইল, বগুড়া, রংপুর এবং কাঁচপুর সেতু এলাকায় অবস্থান নেবে।

ওবায়দুল কাদের জানান, ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় বিআরটিসির জন্য ৬০০ বাস ও ৫০০ ট্রাক সংগ্রহের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর নাগাদ বাস ও ট্রাকের বহর ঢাকায় আসতে শুরু করবে।

সরকারি সেবা সংস্থা বিআরটিসির অনিয়ম সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিআরটিসি বহু বছর ধরে দুর্নাম নিয়ে চলছে। এখানকার কর্মকর্তাদের ঠিকমতো দায়িত্ব পালনের দৃষ্টান্ত খুব কম। ডিপো ম্যানেজারদের বিরুদ্ধে অনেক অনিয়মের অভিযোগ আছে। এমন অভিযোগও আসে, যেগুলো খুব কষ্টদায়ক। আর কত টাকা দরকার আপনাদের? জনগণের টাকা নিয়ে কেউ ছিনিমিনি খেলবেন না। বিআরটিসির সুনাম ফিরিয়ে আনুন। দুর্নীতি, অনিয়ম বন্ধ করুন। বিআরটিসির জন্য সরকার শুধু দেবে, আর কিছুই পাবে না, এটা কেমন করে হয়?’

এর আগে মন্ত্রী বিআরটিসির অবসরপ্রাপ্ত ২১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর অনুকূলে পেনশন ও গ্র্যাচুইটির বকেয়া পাওনার চেক তুলে দেন। এ সময় বক্তব্য দেন বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান।