দিল্লিতে জয়ের পথে বিজেপি

রাজধানী দিল্লির তিন পুরসভার ভোটে আম আদমি পার্টি ও কংগ্রেসকে ধরাশায়ী করে বিজেপি বিপুলভাবে জয়ী হতে চলেছে। দিল্লির উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব—এই তিনটি পুরসভার মোট ২৭১টি আসনের মধ্যে বিজেপি ১৭০টির মতো আসনে জিততে চলেছে। তিনটি পুরসভাই ১০ বছর ধরে বিজেপির দখলে। যদিও দিল্লি রাজ্য বিধানসভার ভোটে ৭০টির মধ্যে ৬৭টি আসন জিতে ইতিহাস তৈরি করেছিল আম আদমি পার্টি।

এই ফলাফলে দিল্লির কংগ্রেস সভাপতি অজয় মাকেন আজ পদত্যাগ করেছেন। সাংবাদিকদের মাকেন বলেন, দলের জন্য তিনি একজন কর্মী হিসেবে কাজ করে যাবেন এবং আগামী এক বছর কোনো পদ নেবেন না।

আজ সকালে গণনা শুরু হওয়ার সময় থেকেই তিন পুরসভায় বিজেপি প্রার্থীরা এগিয়ে যেতে থাকেন। যেভাবে বিজেপি প্রার্থীরা এগোচ্ছেন, তাতে পরিষ্কার, এবারের ভোটেও মোদি-হাওয়া কাজ করেছে।

দিল্লির ক্ষমতায় থাকা আম আদমি পার্টির ফল কী রকম হয়, সেদিকেই ছিল সবার নজর। মাত্র দেড় বছর আগে এই দল দিল্লি বিধানসভার ৭০টি আসনের মধ্যে ৬৭টি আসন জিতে ইতিহাস তৈরি করেছিল। কিন্তু তারপর পাঞ্জাব ও গোয়া বিধানসভার ভোটে আম আদমি পার্টির ভরাডুবি ঘটে। মাত্র কদিন আগে দিল্লির রাজৌরি গার্ডেন বিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী জয়ী হন এবং আম আদমি পার্টির প্রার্থীর জামানত পর্যন্ত জব্দ হয়ে যায়।

পুরসভার ভোটে সম্ভাব্য বিপর্যয়ের পর হারের সব দায় আম আদমি পার্টি চাপিয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ওপর। দলের মন্ত্রী গোপাল রাই, শীর্ষ নেতা আশুতোষ ও মুখপাত্র রাজীব চাড্ডা বলেছেন, বিজেপি ইভিএমে কারসাজি করে ভোটে জিতেছে। এই নেতারা জানিয়েছেন, এই ফল মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে অনাস্থার প্রকাশ নয়। গণভোটও নয়। অতএব মুখ্যমন্ত্রীর ইস্তফা দেওয়ারও প্রশ্ন ওঠে না।

এবারের ভোট কংগ্রেসের পক্ষেও ভালো হয়নি। যদিও গত বিধানসভা নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে কংগ্রেসের ফল মন্দের ভালো। তাদের মুখপাত্র শর্মিষ্ঠা মুখার্জি বলেছেন, বিধানসভা ভোটের তুলনায় কংগ্রেসের ভোট বেড়েছে। তবে বাড়লেও তিন পুরসভাতেই কংগ্রেস এখনো তৃতীয় স্থানে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী দিল্লি উত্তর পুরসভায় ১০৪টি আসনের মধ্যে বিজেপি ৬৪টি পেয়ে এগিয়ে রয়েছে। আম আদমি পার্টি ১৯ ও কংগ্রেস ১৮টি আসন পেয়েছে। দিল্লি দক্ষিণ পুরসভায় ১০৪টি আসনের মধ্যে বিজেপি ৭০টি পেয়ে এগিয়ে রয়েছে। আম আদমি পার্টি ১৫ ও কংগ্রেস ১১টি আসন পেয়েছে। দিল্লি পূর্ব পুরসভায় ৬৪টি আসনের মধ্যে বিজেপি ৪৭টি আসন পেয়ে এগিয়ে রয়েছে। আম আদমি পার্টি ৯ ও কংগ্রেস ২টি আসন পেয়েছে।