ভারতের অরুণাচলের ছয় স্থানের নাম পাল্টালো চীন

ভারতের অরুণাচল প্রদেশকে দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের ভূখণ্ড দাবি করে আসছে চীন। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে অরুণাচলের ছয়টি স্থানের নাম পরিবর্তন করে চীনা এবং রোমান হরফে নতুন নাম ঘোষণা করলো বেইজিং।

কয়েকদিন আগে তিব্বতের আধ্যাত্মিক নেতা দালাই লামার অরুণাচল সফরের তীব্র প্রতিবাদ জানানোর পর নাম পরিবর্তনের তথ্য জানাল চীন।

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীন যে অরুণাচলকে নিজের ভূখণ্ড হিসেবে দাবি করে আসছে; সে বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। চীন অরুণাচলকে দক্ষিণ তিব্বত হিসেবে দাবি করে।

বুধবার চীনের রাষ্ট্রীয় দৈনিক গ্লোবাল টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৪ এপ্রিল চীনের বেসামরিক বিষয়ক মন্ত্রণালয় বলছে, চীনা, তিব্বতি ও রোমান বর্ণমালায় দক্ষিণ তিব্বতের ছয় স্থানের নাম লেখা হয়েছে। দক্ষিণ তিব্বতকে ভারত অরুণাচল প্রদেশ হিসেবে দাবি করে।

চীনের দেয়া অরুণাচলের এ ছয় স্থানের নতুন নাম হচ্ছে ওয়াগইনলিং, মিলা রি, কুইদেঙ্গারবো রি, মেইনকুকা, বুমো লা, ন্যামকাপুব রি।

ভারত-চীন সীমান্তে ‘লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল’র ৩ হাজার ৪৮৮ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দুই দেশের বিরোধ রয়েছে। চীন যখন অরুণাচল প্রদেশকে দক্ষিণ তিব্বত বলে দাবি করছে, তখন নয়াদিল্লি বলছে, বেইজিংয়ের সঙ্গে নয়াদিল্লির বিতর্ক আকসাই চীন এলাকা নিয়ে। ১৯৬২ সালে চীন-ভারত যুদ্ধের সময় এ এলাকা দখলে নেয় বেইজিং।

সীমান্তবিরোধ মেটাতে দুই দেশের বিশেষ প্রতিনিধিরা এখন পর্যন্ত ১৯ বার বৈঠক করেছেন। তবে কোনো সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি এ দুই প্রতিবেশী।

৮১ বছর বয়সী তিব্বতের আধ্যাত্মিক নেতা দালাই লামার অরুণাচল প্রদেশ সফরের সময় চীন ভারতকে সতর্ক করে দেয়। এ সময় আঞ্চলিক সার্বভৌমত্ব ও স্বার্থ রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে ঘোষণা দেয় চীন।