স্টকহোমে আটক ব্যক্তি সন্দেহভাজন হামলাকারী

সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে মানুষের ভিড় মাড়িয়ে ডিপার্টমেন্ট স্টোরে ট্রাক ঢুকিয়ে দেওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার ব্যক্তি সম্ভবত ট্রাকটির চালক। আজ শনিবার এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল শুক্রবার শহরের মধ্যাঞ্চলের ড্রটনিংগাতানে পথচারীদের চলাচলের ব্যস্ত একটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় চারজন নিহত ও ১২ জন আহত হয়েছে। দেশটির সরকার একে সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে অভিহিত করেছে। এখনো কেউ হামলার দায় স্বীকার করেনি।

স্টকহোম পুলিশের মুখপাত্র লারস বিসস্ট্রম এএফপিকে বলেন, ‘আমাদের সন্দেহ, এই ব্যক্তিই সেই অপধারী।’

এর আগে পুলিশ বলেছিল, হামলাকারী সন্দেহে এক ব্যক্তির ছবি প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর মাথায় কালো হুডি ও সামরিক বাহিনীর জ্যাকেটের মতো পোশাক ছিল। এই ছবির সঙ্গে মিল রয়েছে—এমন এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

বিসস্ট্রম বলেন, ‘আটক ব্যক্তিটি ছবির সেই ব্যক্তি হতে পারেন।’

আফতোনব্লোডেত পত্রিকায় বলা হয়, ছবির সেই ব্যক্তির বয়স ৩৯ বছর। তিনি উজবেকিস্তানের এবং আইএসের সমর্থক।

স্থানীয় সময় গতকাল বেলা তিনটার একটু আগে আহ্লেন্স ডিপার্টমেন্ট স্টোর নামের ওই দোকানে ঢুকে পড়ে নীল রঙের একটি বড় ট্রাক। এরপর দোকানটি থেকে ঘন ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। পুরো শহরে পুলিশ মাইকিং করে, সাধারণ মানুষকে বাড়িতে যেতে অনুরোধ করে। আকাশে চক্কর দিতে থাকে পুলিশের হেলিকপ্টার।

যে ট্রাকটি দিয়ে হামলা চালানো হয়, সেটি সুইডেনের স্পেনড্রাপস নামের একটি কোম্পানির। প্রতিষ্ঠানটি বলেছে, গতকালই একটি রেস্তোরাঁয় পণ্য সরবরাহ করতে গিয়ে ট্রাকটি ছিনতাই হয়।

ট্রাক নিয়ে সম্প্রতি হামলার ঘটনা ঘটেছে ফ্রান্সের নিস, জার্মানির বার্লিন ও যুক্তরাজ্যের লন্ডনে। এর মধ্যে নিসে গত ১৪ জুলাই বাস্তিল দিবসের এক অনুষ্ঠানে বিপুলসংখ্যক মানুষের ভিড়ের মধ্যে ট্রাক তুলে দিলে নিহত হন অন্তত ৮৬ জন। এ হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস। আর লন্ডনে গত ২২ মার্চ ব্রিটিশ পার্লামেন্ট লাগোয়া সেতুতে লোকজনের ওপর তুলে দেওয়া হয় একটি প্রাইভেট কার। এতে নিহত হন চারজন। পরে হামলাকারী পার্লামেন্ট প্রাঙ্গণে ঢুকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন এক পুলিশ কর্মকর্তাকে। পুলিশের গুলিতে নিহত হন হামলাকারী।