শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৯০

কলম্বো টেস্টের চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনে বাংলাদেশের সাফল্য বলতে একটাই। দিনের দ্বিতীয় বলে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে থারাঙ্গা ফিরেছিলেন বোল্ড হয়ে। এরপর পাল্টা লড়াইয়ে গোটা সেশনই নিজেদের করে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। দিমুথ করুণারত্নে ও কুশল মেন্ডিস ৮০ রানের জুটি গড়ে লঙ্কানদের এনে দিয়েছিলেন লিড। তবে মধ্যাহ্নবিরতির পরপরই নিজেদের ফিরে পেয়েছে বাংলাদেশ। পরপর ২টি উইকেট তুলে নিয়ে চাপটা আবারও শ্রীলঙ্কার দিকে ঠেলে দিয়েছেন বাংলাদেশের বোলাররা, নির্দিষ্ট করে বললে মোস্তাফিজুর রহমান ও সাকিব আল হাসান।
৪৫তম ওভারের শেষ বলে আঘাত হানেন মোস্তাফিজ। ৩৬ রানে উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ দেন কুশল মেন্ডিস। খালি চোখে মনে হচ্ছিল বল মেন্ডিসের ব্যাটে হাওয়া লাগিয়ে গেছে। আম্পায়ার এস রবি আবেদনে সাড়া দেননি। কিন্তু রিভিউ নিয়ে সফল হলেন মুশফিক। টেলিভিশন রিপ্লে দেখে মেন্ডিস আউট হয়েছেন বলে জানান টিভি আম্পায়ার।
৫ ওভার পরেই মোস্তাফিজের দ্বিতীয় আঘাত। মেন্ডিসের মতোই উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করা দিনেশ চান্ডিমাল। তবে তাঁকে কট বিহাইন্ড ঘোষণা করতে টেলিভিশন আম্পায়ার তো দূরের কথা, মাঠের আম্পায়ারেরও সাহায্য লাগেনি। মোস্তাফিজের বল চান্ডিমালের ব্যাটের কানায় লেগে সোজা চলে যায় উইকেটকিপার মুশফিকের গ্লাভসে। একটু ডানে সরে ঝাঁপিয়ে পড়ে বলটা লুফে নেন তিনি।
চান্ডিমাল ফেরার ৩ ওভার পরেই সাকিবের বলে এলবিডব্লু হয়ে ফিরে যান আসেলা গুণারত্নে। এরপর আবার আঘাত হানেন মোস্তাফিজ। পরের ওভারেই ধনঞ্জয় ডি সিলভাকে কোনো রান করার আগেই মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান কাটার মাস্টার।
এই প্রতিবেদন লেখার সময় শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৯০।