বার্তাবাংলা ডেস্ক »

টিভি রিয়্যালিটি শোয়ে প্রতিযোগীদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ, হাতাহাতি ও কান্নাকাটির ঘটনা হামেশাই দেখা ও শোনা যায়। অতটুকু ইচ্ছে করেই সমর্থন করে আয়োজকেরা। কিন্তু তাই বলে গুরুতর অপরাধকে সমর্থন করা! প্রতিযোগিতায় জিততে মারামারি, যৌনতা, এমনকি হত্যা করতেও কোনো বাধা থাকবে না! সম্প্রতি রাশিয়ায় এমনই একটি রিয়্যালিটি শো শুরু হতে যাচ্ছে।

ইন্ডিয়া টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রিয়েল লাইফ ‘হাঙ্গার গেমস’ শিরোনামে রাশিয়ার টিভি রিয়্যালিটি শোটি চলতি বছরের জুলাই থেকে শুরু হবে। এই শোয়ে প্রতিযোগীদের মারামারি, যৌনতা ও হত্যায় কোনো বাধা নেই। এমন একটি চুক্তিপত্রে সই করেই নাম লিখিয়েছেন প্রতিযোগীরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জুলাই মাস থেকে সাইবেরিয়ার ওব নদীর কাছে প্রত্যন্ত এক দ্বীপে ‘গেম ২: উইন্টার’ শিরোনামে রিয়্যালিটি শোয়ের সিরিজ শুরু হতে যাচ্ছে। পরে তা ইন্টারনেটের মাধ্যমে সারা বিশ্বে সম্প্রচার করা হবে। এই প্রতিযোগিতায় ৩০ জন অংশগ্রহণকারী নাম লিখিয়েছেন। এঁদের মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার একজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা, সুইডেনের একজন শিক্ষার্থী ও রাশিয়ার একজন নারী রয়েছেন। হত্যাসহ যেকোনো ক্ষতির ব্যাপারে জেনেই তাঁরা চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন। চুক্তিপত্রে বলা হয়েছে, এখানে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সময় কেউ যদি আহত, ধর্ষণ বা ইচ্ছাকৃত যৌনতা ও হত্যার শিকার হন, তাহলে এর দায়ভার কোনোভাবেই আয়োজকের নয়।

রিয়্যালিটি শোয়ের নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, সাইবেরিয়ার ওব নদীর কাছে প্রত্যন্ত ওই দ্বীপে প্রতিযোগীদের চলতি বছরের জুলাই থেকে আগামী বছরের ১ এপ্রিল পর্যন্ত টানা নয় মাস সংগ্রাম করে টিকে থাকতে হবে।

নির্দেশিকায় আরও বলা হয়, ‘প্রতিযোগিতায় মারামারি, মদ্যপান, হত্যা, ধর্ষণ, ধূমপানসহ সবকিছুর অনুমতি রয়েছে। নয় মাস ধরে প্রতিযোগীদের খাবার সংগ্রহ করে বেঁচে থাকতে হবে। খেলা চলার সময় কোনো ব্যাপারেই আয়োজকেরা হস্তক্ষেপ করবেন না। প্রতিযোগীদের মধ্যে যৌনতা নিয়েও কোনো নিষেধ নেই। যেকোনো প্রতিযোগী খেলা চলাকালে যে কারও সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে পারবেন। তাঁদের এ যৌনজীবন কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রিত হবে না।’

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »