নব্য জেএমবির আমির কাসেম ফের রিমান্ডে

নব্য জেএমবির আমির মুফতি আবুল কাসেমকে ফের পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। আজ শনিবার ঢাকা মহানগর হাকিম ওয়ায়েজ কুরনী খান চৌধুরী এ আদেশ দেন।

এর আগে মিরপুর থানার মামলায় এ আসামিকে আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এর আগে ৩ মার্চ এ মামলায় আবুল কাসেমকে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন আদালত। ওই আবেদনে বলা হয়, আবুল কাসেম নব্য জেএমবির প্রশিক্ষক এবং সদস্যদের জন্য বই লিখতেন। নব্য জেএমবির শীর্ষস্থানীয় নেতা তামিম চৌধুরী ২০১৩ সালে কানাডা থেকে দেশে আসার পর রাজশাহীতে যে বৈঠক করেছিলেন, সেখানে কাসেম উপস্থিত ছিলেন।

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী সম্প্রতি গ্রেপ্তার হওয়ার পর তাঁর কাছ থেকে কাসেমের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানা যায়। নব্য জেএমবির অন্য পলাতক সদস্যদের সম্পর্কে তথ্য পেতে এবং গ্রেপ্তারে আবুল কাসেমকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি। শুনানি শেষে আদালত আবুল কাসেমের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

২ মার্চ রাতে রাজধানীর সেনপাড়া পর্বতা এলাকা থেকে আবুল কাসেমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ নিয়ে এক সংবাদ ব্রিফিং করেন ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার অনুমোদন দিয়েছিলেন কাসেম। জেএমবির শীর্ষ নেতা মাওলানা সাইদুর রহমান ২০১০ সালে গ্রেপ্তার হন। এরপর কাসেম জেএমবির বিদ্রোহী অংশের (নব্য জেএমবি) আমির হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি তাঁর নিজস্ব মনগড়া ধর্মীয় মতবাদ দিয়ে নব্য জেএমবিকে হিংস্র করে তোলেন।