মৌলভীবাজারে টানা তিনদিনের হরতালে জনদুর্ভোগ » Leading News Portal : BartaBangla.com

বার্তাবাংলা ডেস্ক »

এস এ চৌধুরী, মৌলভীবাজার:: আজ মঙ্গলবার বিএনপির দেশব্যাপী ডাকা হরতাল-  জেলার সর্বত্র ঢিলেঢালাভাবে পালিত হয়েছে। সরজমিনে হরতালের সমর্থনে মিছিল,সভা, পিকেটিং হয়নি এবং কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। অফিস আদালতে লোকজনের উপস্থিতি অন্যান্য দিনের চেয়ে কম ও  দূরপাল্লার বাস ব্যতীত হালকা যানবাহন আংশিক চলাচলসহ দোকানপাট খোলা  থাকলেও জনজীবনে দুর্ভোগ সৃষ্ঠি হয়েছিল। অনেকের নানান কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলেও আজ বিএনপির ও জামায়াতের গত দুই দিনসহ টানা তিন দিনের হরতালে সব পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। বাস চালক ও সিএনজি চালকদের মাথায় হাত দিয়ে ষ্ট্যান্ডে বসে গল্পগুজব করে অলস সময় পার করতে দেখা গেছে। আতংকিত হয়ে অনেকেই সিএনজি বের করেননি। আজকের হরতাল প্রসঙ্গে সদর থানার ওসির সাথে সন্ধ্যা ৭.৩০ ঘ: মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, হরতালে কোনো আটক গ্রেফতার করা হয়নি এবং কোনো প্রকার সহিংসতা ছাড়াই পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল।  কমলগঞ্জ থানার ওসির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগে করা হলে সেকেন্ড অফিসার মধুসুদন রায় পরিচয়দানকারী- স্যার মৌলভীবাজারে এসপি অফিসে মিটিংএ গেছেন জানালে তার কাছে হরতাল বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজ কমলগঞ্জের কোথাও হরতালের সমর্থনে কোনো মিছিল মিটিং পিকেটিং হয়নি এবং কোনো আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি ।
উল্লেখ্য হরতালের পূর্ব দিন সোমবার সন্ধ্যার পর শমশেরনগর ও কমলগঞ্জ উপজেলা সদরে হরতালের সমর্থনে জেলা বিএনপির এক পক্ষের নেতৃত্বকারী ও জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমানের অনুসারীরা এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে ও পথসভা অনুষ্ঠিত হয় । এর কিছুক্ষণ পর মঙ্গলবারের (আজ) হরতাল ও দেশব্যাপী জামায়াত-শিবিরের তান্ডবের প্রতিবাদে কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্য করুন »