মৌলভীবাজারে-স্কুল শিক্ষকের বসতগৃহে আগুন ॥১০ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন » Leading News Portal : BartaBangla.com

বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Pic----Kamalgonj

এসএচৌধুরী,মৌলভীবাজার:: পুর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের দেয়া আগুনে এক স্কুল শিক্ষকের বসতগৃহসহ ৩টি ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। নগদ টাকাসহ ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে স্কুল শিক্ষকের অভিযোগ। এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার সন্ধ্যা ৭টায় কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের রামেশ্বরপুর গ্রামের প্রাইমারী স্কুলের শিক্ষক মো: আব্দুর রশিদের বাড়িতে একটি অগ্নিকান্ড সংঘটিত হয়। অগ্নিকান্ডে স্কুল শিক্ষকের ঘরে রক্ষিত নগত ৩ লক্ষ টাকা, প্রায় ৩০ মণ আলু, স্বর্ণালংকার, মূল্যবান কাপড়চোপড়, ফার্নিচার, দলিলপত্রসহ প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন পৌঁছার আগেই আগুনে ভস্মিভূত হয়ে যায় বসতগৃহ, গরুর গৃহ ও খরের ঘর। ঘটনার খবর পেয়ে রোববার রাতেই কমলগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
রামেশ্বরপুর গ্রামের স্কুল শিক্ষক মো: আব্দুর রশিদ জানান, একই গ্রামের সুলতান মিয়া (২৫), মছদ্দর আলী (৫০) ও সুলেমান হোসেন (১৯) এর সাথে তার বসত বাড়ির উপর দিয়ে পরিকল্পিতভাবে বিদ্যুৎ লাইন নেওয়ার চেষ্টা করলে তিনি বাঁধা দেন। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা তদন্তাধীন রয়েছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে কমলগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত একটি মামলা বিচারাধীন আছে। আদালত থেকে জামিন নিয়ে স্কুল শিক্ষককে নানাভাবে প্রাণনাশের হুমকি দিত বলে অভিযোগ করে তিনি (স্কুল শিক্ষক) বলেন, রোববার সন্ধ্যা ৭টায় রামেশ্বরপুর গ্রামের সুলতান মিয়া (২৫), মছদ্দর আলী (৫০) ও সুলেমান হোসেন (১৯) তাদের বসতগৃহে আগুন লাগিয়ে দেয়। পালিয়ে যাবার সময় স্থানীয় লোকজন তাদের শনাক্ত করেন। স্থানীয় লোকজন ও দমকল বাহিনীর সম্মিলিত চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই নগদ টাকা, মুল্যবান জিনিসপত্রসহ ৩টি ঘরই ভস্মীভূত হয়। এতে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতিসাধন হয় বলে বাড়ির মালিক দাবি করেন। পূর্বশত্রুতার জের ধরে বসতগৃহে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে এ ঘটনায় স্কুল শিক্ষক মো: আব্দুর রশিদ বাদী হয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে ৩ জনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
পরিবারের সদস্যরা পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষ বসত গৃহে আগুন দেওয়ার কথা জানালেও কমলগঞ্জের ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের সাব ষ্টেশন অফিসার আশরাফ উদ্দিন জানান, প্রাথমিক ধারনা করা হচ্ছে রান্নার চুলা থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়। এতে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হলেও প্রায় ২০ লাখ টাকার সম্পদ রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। ঘটনার ব্যাপারে গতকাল সোমবার বিকেলে কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ব্যাপারে রামেশ্বরপুর গ্রামের সুলতান মিয়া ও  মছদ্দর আলীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্য করুন »