রাজীব হত্যা: ‘বড় ভাই’কে গ্রেফতারে ডিবির একাধিক টিম » Leading News Portal : BartaBangla.com

বার্তাবাংলা ডেস্ক »

rajib hotttttaবার্তাবাংলা ডেস্ক :: শাহবাগ গণআন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ব্লগার রাজীব হত্যার পরিকল্পনাকারী শিবির নেতা কথিত সেই ‘বড় ভাই’কে গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে কয়েকটি টিম তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

শিবির নেতা ‘বড় ভাই’কে গ্রেফতার করলে রাজীব হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটিত হবে বলে মনে করছেন গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তারা।

ব্লগার রাজীব হায়দার হত্যা মামলায় আটক নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ ছাত্রকে আটকের পর রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন- এমন কর্মকর্তাদের কাছ থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ডিবি কর্মকর্তারা বলছেন, রাজীব হায়দার হত্যার পরিকল্পনা সেই ‘বড় ভাই’কে আটক করতে পারলে অনেক প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে। বলতে গেলে পুরো রহস্যই উন্মোচন হয়ে যাবে, পাওয়া যাবে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

তারা বলেন, গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সাত দিনের রিমান্ডের প্রথম দিন অতিবাহিত হয়েছে। প্রথম দিনে তাদের কাছ থেকে হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করা ছাড়া বাকি কিছু বিষয়ে তথ্য পাওয়া যায়নি। আটককৃতরা বলছেন, পুরো বিষয়টি ওই ‘বড় ভাই’ জানেন। তার কথামতোই তারা হত্যায় অংশ নিয়েছেন। এর বাইরে তারা আর কিছুই জানেন না।

মূলত এ কারণেই কথিত সেই বড় ভাইয়ের সন্ধানে মাঠে নেমেছে গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম। টিমগুলো ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সম্ভাব্য স্থানগুলোতে অভিযান পরিচালনা করছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, বড় ভাইকে ধরতে তাদের তিনটি টিম কাজ করছে। এর মধ্যে একটি টিম ঢাকা ও বাকি দু’টি টিম রয়েছে ঢাকার বাইরে। দ্রুত সেই বড় ভাই গ্রেফতার হবে বলেও দাবি করেছেন তারা।

প্রসঙ্গত, যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে শাহবাগের গণজাগরণ চত্বরের গণআন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ব্লগার রাজীব হায়দার শোভনকে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পল্লবী থানার পলাশনগরের বাড়ির অদূরে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। প্রথমে মামলাটি পল্লবী থানা তদন্ত করলেও পরে মামলাটি মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে চলে আসে।
গত ১ ও ২ ফেব্রুয়ারি গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে হত্যার সঙ্গে জড়িত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ ছাত্র ফয়সাল বিন নাইম (২২), মাকসুদুল হাসান অনিক (২৬), এহসানুর রেজা রোমান (২৩), নাঈম সিকদার (১৯) ও নাফিস ইমতিয়াজকে (২২) আটক করে। এ সময় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ২টি চাপাতি, ৪টি ছোরা, ১টি বাইসাইকেল, ১ জোড়া রিবুক কেডস, ৭টি বিভিন্ন মডেলের মোবাইল সেট ও ১টি স্কুল ব্যাগ উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা সবাই রাজীব হত্যার কথা স্বীকার করেন। পরে তাদের আদালতে পাঠিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। বর্তমানে তাদের গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »