পেটের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে যেসব চা

পেটে ব্যথা হলে এর থেকে উপশম লাভ করার একটি সহজ উপায় হচ্ছে এক কাপ চা পান করা। পেটে ব্যথা বিভিন্ন কারণে হতে পারে যেমন- স্নায়ুর কারণে, অসুস্থতার কারণে অথবা খাদ্যের কারণে। কিছু চায়ের শান্তিদায়ক প্রভাব আছে বলে পেটের ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে পারে। পেটের ব্যথা থেকে মুক্ত হতে সঠিক চা পছন্দ করাটা গুরুত্বপূর্ণ। পেটের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে যে চা গুলো সেগুলো হচ্ছে-

১. আদা চা

হাজার বছর ধরেই আদা এশিয়া মহাদেশে ঔষধি গুণাগুণের জন্য বিখ্যাত। চায়ের সাথে আদা যোগ করে পান করলে পেট খারাপ, বদহজম, মোশন সিকনেস এবং বমি বমি ভাব দূর করতে সাহায্য করে।

২. ক্যামোমিল চা

সারা বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ঔষধি হচ্ছে ক্যামোমিল। যার আছে প্রদাহরোধী, অনৈচ্ছিক পেশীর খিঁচুনি উপশম করার ও বায়ুনাশকারী বৈশিষ্ট্য। এজন্যই এটি পাকস্থলীকে শীতল করার জন্য ভালো। ক্যামোমিল চা পেট খারাপ, পেট ফাঁপা, আইবিএস, বদহজম এবং পেটে গ্যাস হওয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে।

৩. মেন্থল চা

ঐতিহ্যগতভাবেই মেন্থল পাতা ও তেল ঔষধি উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়। পাকস্থলীর পেশীকে শীতল করার মাধ্যমে এবং পিত্তরসের প্রবাহকে উন্নত করার মাধমে পেটের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে মেন্থল চা। এছাড়াও বমি বমি ভাব, মাসিকের ব্যথা, গ্যাসের সমস্যা এবং পেটের অন্য যেকোন ধরণের রোগ নিরাময় হতে সাহায্য করে মেন্থল চা।

৪. পুদিনা চা

পুদিনা একটি ঔষধি তৃণ। বমি বমি ভাব, পেটের গ্যাস, বদহজম, ডায়রিয়া, আইবিএস, পিত্তথলি ফুলে যাওয়া এবং পিত্তপাথরের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে।

৫. তুলসী চা

তুলসী একটি জনপ্রিয় আয়ুর্বেদিক ঔষধি উদ্ভিদ। তুলসী পেট খারাপ, পেট ফাঁপা এবং পেটের গ্যাসের সমস্যার সমাধান করতে পারে।

৬. যষ্টিমধুর চা

যষ্টিমধু পেটের আলসার থেকে সুরক্ষা দেয়। আলসার হলে পেটে ব্যথা, পেট ফাঁপা এবং বদহজমের সমস্যা হয়। যষ্টিমধুর চা পান করলে পাকস্থলীর ভেতরের প্রাচীরে প্রতিরক্ষামূলক প্রভাব সৃষ্টি করে।

৭. গ্রিনটি

গ্রিনটি পেট ফাঁপা এবং পেটে গ্যাস হওয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। বিভিন্ন রকমের চা বিভিন্ন সমস্যা উপশম করতে পারে বটে। তবে পেটের অস্বস্তির প্রতিকারের জন্য চা গ্রহণের পূর্বে আপনার পেটে ব্যথার কারণটি জেনে নিন।