রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের যত ব্যবহার

অলিভ অয়েল কেবল রান্নার কাজেই ব্যবহৃত হয় না, ত্বক ও চুল সুস্থ রাখতেও এর জুড়ি মেলা ভার। যাদের ত্বক শুষ্ক তাদের জন্য অলিভ অয়েল মহৌষধ। ত্বকের শুষ্কতা দূর করার পাশাপাশি ঝলমলে চুলের জন্যও চাই অলিভ অয়েল। জেনে নিন রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের বিভিন্ন ব্যবহার সম্পর্কে-

১. অলিভ অয়েল বাথ
শীতকালে যাদের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে পড়ে তাদের জন্য খুবই কার্যকরী অলিভ অয়েল বাথ। গোসলের পানিতে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন। বডি লোশন ব্যবহারের প্রয়োজন হবে না।

২. মেকআপ রিমুভার
ত্বক থেকে ঠিকঠাক মেকআপ তুলে ফেলা বেশ ঝক্কির বিষয়। তবে অলিভ অয়েল ব্যবহার করে সহজেই তুলে ফেলতে পারেন মেকআপ। তুলা অলিভ অয়েলে ভিজিয়ে ত্বকে ঘষুন। উঠে যাবে মেকআপ।

৩. চুলের যত্নে
অলিভ অয়েল গরম করে মাথার তালুতে লাগান। কিছুক্ষণ পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলের গোড়া শক্ত হবে ও ঝলমলে হবে চুল।

৪. প্রাকৃতিক লোশন হিসেবে
ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে লোশনের বদলে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

৫. নখের যত্নে
যাদের নখ বারবার ভেঙে যায় তারা নখের যত্নে ব্যবহার করতে পারেন অলিভ অয়েল। অলিভ অয়েল কুসুম গরম করে নখ ডুবিয়ে রাখুন। সপ্তাহে একবার এটি করলে নখ শক্ত হবে।

৬. ত্বকের যত্নে
শুষ্ক ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল দিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন ফেসপ্যাক। ডিমের কুসুম, অলিভ অয়েল ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে তৈরি করুন ফেসপ্যাক। ত্বকে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৭. ডার্ক সার্কেল দূর করতে
চোখের নিচে কালি পড়লে রাতে ঘুমানোর আগে সামান্য অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করে নিন। পরদিন সকালে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত করলে দূর হবে চোখের নিচের কালো দাগ।

৮. ঠোঁটের স্ক্রাবার হিসেবে
ঠোঁটে মরা চামড়া জমে কালচে দেখায়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে অলিভ অয়েল ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ঠোঁটে ঘষুন। দূর হবে মরা চামড়া।