মুসা শিগগিরই ধরা পড়বে : ডিএমপি কমিশনার

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, রাজধানীর আশকোনার জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের আগে পালিয়ে যাওয়া জঙ্গি মুসা শিগগিরই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ধরা পড়বে।

খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শুভ বড়দিনের নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শন করতে গিয়ে আজ রোববার রাজধানীর কাকরাইলে রমনা ক্যাথেড্রাল চার্চ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন আছাদুজ্জামান মিয়া। খবর বাসসের।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘আমরা ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি সফল অভিযানের মধ্য দিয়ে জঙ্গিদের নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছি। জঙ্গিদের অর্থদাতা, উৎসাহদাতা ও সমর্থনদাতা সবাইকে নজরদারিতে রেখেছি।’ তিনি আরও বলেন, জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। এটা কারও একার সমস্যা নয়। গুলশানের হলি আর্টিজানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা সবাইকে থমকে দিয়েছিল। এ সময় জঙ্গি দমনে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট অত্যন্ত সফল কার্যক্রম শুরু করে এবং বেশ কয়েকটি অপারেশন সফলভাবে সম্পন্ন করেছে।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, সারা বিশ্বের মতো রাজধানীতেও কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ৬২টি চার্চে বড়দিনের উৎসব পালিত হচ্ছে। এ জন্য প্রতিটি চার্চে বড়দিন উপলক্ষে নিরবচ্ছিন্ন নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিটি চার্চে বহির্গমন ও প্রবেশপথে নিরাপত্তামূলক আর্চওয়ে বসানো হয়েছে। আগে থেকে খ্রিষ্টধর্মীয় নেতা ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে নিরাপত্তা বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, বাংলাদেশ হচ্ছে অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ। এখানে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টানসহ সব ধর্মাবলম্বীকে নিয়ে সর্বজনীন উৎসব পালন করা হয়।

ডিএমপি কমিশনার রমনা ক্যাথেড্রাল চার্চে পৌঁছানোর পর চার্চের ফাদার, কর্মকর্তা ও খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে বড়দিনের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এ সময় পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অ্যাডমিন) মো. শাহাব উদ্দিন কোরেশী, অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত কমিশনার মো. জামিল আহমেদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।