স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে নিজেদের ঘরে শাড়ি দিয়ে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার ইব্রাহীম ইউনিয়নের কুমারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃত দম্পতি হলেন কুমারপাড়া গ্রামের নরেশ পালের ছেলে মিঠুন পাল (২২) ও তাঁর স্ত্রী বিউটি রানী পাল (১৯)। বিউটির গ্রামের বাড়ি জেলার বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের কুমারপাড়া গ্রামে।

প্রত্যক্ষদর্শী, এলাকার লোকজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এক বছর আগে বিউটি ও মিঠুনের বিয়ে হয়। প্রায় আট মাস আগে তাঁরা ভারতের ত্রিপুরায় চলে যান। ১৫-২০ দিন আগে দেশে ফিরে আসেন। আজ সকালে বিউটির শাশুড়ি বিনা রানী পাল ঘুম থেকে জাগিয়ে তুলতে দরজায় ধাক্কা দেন। পরে পরিবার ও আশপাশের লোকজন এসে দরজা ভেঙে ঘরে তাঁদের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে নবীনগর থানার পুলিশ তাঁদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

মিঠুনের মা বিনা রানী পাল বলেন, ‘আমার ছেলে মিঠুন ভারতের ত্রিপুরায় একটি সেলুনে কাজ করত। তার স্ত্রী বিউটি সেখানে অন্যের বাড়িতে কাজ করত। কয়েক দিন আগে তারা দেশে আসে। তাঁরা আত্মহত্যা করবে, তা কোনো দিন চিন্তাও করিনি।’

লাশ উদ্ধারের সময় থাকা নবীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মেসবাহ উদ্দিন বলেন, শোবার ঘর থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়। দোচালা টিনের ঘরের চালার কাঠের মধ্যে শাড়ির সাহায্যে ফাঁস দিয়ে তাঁরা আত্মহত্যা করেছেন। ঘরের দুই দিকে তাঁদের লাশ ঝোলানো ছিল।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, মিঠুনের পরিবারের সদস্যরা মূলত কুমারের কাজ করতেন। পরিবারে তেমন সচ্ছলতা ছিল না। পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে হয়তো তাঁরা আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।