গ্র্যামীতে সর্বাধিক নয়টি মনোনয়ন পেলেন বিয়ন্সে

বিশ্বসংগীতের সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্র্যামী অ্যাওয়ার্ডসের ৫৯তম আসরের মনোনয়ন তালিকা প্রকাশিত হলো মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর)। এবার পপ, রিদমঅ্যান্ডব্লুজ ও হিপ-হপ শিল্পীরা আছেন সামনের সারির লড়াইয়ে। সাধারণত রক ও কান্ট্রি মিউজিকের প্রাধান্য দেখা যায় এ অনুষ্ঠানে। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোর মতো এবারও রিদমঅ্যান্ডব্লুজ ও হিপ-হপ শিল্পীদের স্বীকৃতি পাওয়াটা লক্ষণীয়।

সর্বাধিক নয়টি বিভাগে মনোনীত হয়েছেন মার্কিন রিদমঅ্যান্ডব্লুজ গায়িকা বিয়ন্সে। এর মধ্যে আছে গ্র্যামীর সামনের সারির তিন বিভাগ- অ্যালবাম, সং ও রেকর্ড অব দ্য ইয়ার। নিজের জনপ্রিয় গান ‘ফরমেশন’ ও ভিজ্যুয়াল অ্যালবাম ‘লেমোনেড’ মনোনয়নগুলো এনে দিয়েছে ৩৫ বছর বয়সী এই তারকাকে। অ্যালবামটিতে রয়েছে বর্ণ, নারী-জাগরণ ও ক্ষমতায়ন বিষয়ক গান।

গ্র্যামীর ইতিহাসে সবচেয়ে বেশিবার (৬২টি) মনোনীত গায়িকা বিয়ন্সে। এবারের আসরে মনোনীত সব বিভাগে পুরস্কার জিতলে গায়িকা হিসেবে সর্বাধিক গ্র্যামী জয়ের রেকর্ড গড়বেন তিনি। ঝুলিতে ২০টি গ্র্যামী পুরস্কার আছে ঠিকই, তবে কখনও অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার সম্মান জেতা হয়নি তার। যদিও দুইবার এ বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছেন তিনি।

উল্লিখিত তিনটি বিভাগে বিয়ন্সে ছাড়া মনোনীত হয়েছেন একমাত্র অ্যাডেল। ২০১২ সালে ‘টোয়েন্টি ওয়ান’ অ্যালবামের সুবাদে ছয়টি গ্র্যামী পুরস্কার জয় করেন ব্রিটিশ এই তারকা। ফলে বলা যায়, তিনিই এবার বিয়ন্সের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী। ‘টোয়েন্টি ফাইভ’ অ্যালবামের সুবাদে অ্যাডেল মনোনয়ন পেয়েছেন পাঁচটি। এর দুটি এসেছে তার বিখ্যাত গান ‘হ্যালো’র সুবাদে। অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার বিভাগে তিনি জিতলে গ্র্যামীর ইতিহাসে দ্বিতীয় গায়িকা হিসেবে দুইবার পুরস্কারটি জয়ের রেকর্ড গড়বেন। এটি এখন আছে টেলর সুইফটের দখলে।

অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার বিভাগে আরও মনোনীত হয়েছে জাস্টিন বিবারের ‘পারপাস’, ড্রেকের ‘ভিউজ’ ও কান্ট্রি সংগীতশিল্পী স্টারগিল সিম্পসনের ‘অ্যা সেইলরস গাইড টু আর্থ’।

আটটি করে মনোনয়ন পেয়েছেন কানাডিয়ান হিপ-হপ তারকা ড্রেক, বারবাডোজের গায়িকা রিয়ান্না ও মার্কিন র‌্যাপার কানইয়ে ওয়েস্ট। এর মধ্যে ড্রেক ও রিয়ান্নার দ্বৈত গানের মনোনয়ন আছে তিনটি। দুটি এসেছে ‘ওয়ার্ক’ গানের সুবাদে। অন্যটি হলো ‘ভিউজ’। তৃতীয় সর্বাধিক সাতটি বিভাগে মনোনীত হয়েছেন শিকাগোর ২৩ বছর বয়সী চান্স দ্য র‌্যাপার। এর মধ্যে আছে বেস্ট নিউ আর্টিস্ট।

চোখে পড়ার মতো হতাশার ব্যাপার হলো, কানইয়ে ওয়েস্টের ‘দ্য লাইফ অব পাবলো’ কিংবা জানুয়ারিতে মৃত্যুবরণ করা ডেভিড বোওয়ির ‘ব্ল্যাকস্টার’ মনোনীত হয়নি সামনের সারির কোনো বিভাগে। যদিও ‘ব্ল্যাকস্টার’ বেস্ট অল্টারনেটিভ অ্যালবামসহ মনোনয়ন পেয়েছে চারটি। আরেক প্রয়াত শিল্পী প্রিন্স তার শেষ অ্যালবাম ‘হিট এন রান ফেজ টু’র জন্য বেস্ট ইঞ্জিনিয়ার্ড, নন-ক্লাসিক্যাল বিভাগে পেয়েছেন মরণোত্তর মনোনয়ন। কোল্ডপ্লের জন্যও এ তালিকা হতাশার। ‘অ্যা হেড ফুল অব ড্রিমস’ বিশ্বব্যাপী সাড়া জাগালেও ব্রিটিশ ব্যান্ডটি কেবল বেস্ট মিউজিক ভিডিও বিভাগে মনোনীত হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে স্টেপলস সেন্টারে গ্র্যামী অ্যাওয়ার্ডসের এবারের আসর বসবে আগামী বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি। এটি উপস্থাপনা করবেন ব্রিটিশ অভিনেতা, কমেডিয়ান, টিভি উপস্থাপক জেমস গর্ডেন।

গ্র্যামীর মূল বিভাগগুলোর মনোনয়ন তালিকা
অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার: অ্যাডেল (টোয়েন্টি ফাইভ), বিয়ন্সে (লেমোনেড), জাস্টিন বিবার (পারপাস), ড্রেক (ভিউজ), স্টারগিল সিম্পসন (অ্যা সেইলরস গাইড টু আর্থ)

রেকর্ড অব দ্য ইয়ার: অ্যাডেল (হ্যালো), বিয়ন্সে (ফরমেশন), লুকাস গ্রাহাম (সেভেন ইয়ারস), রিয়ান্না ফিচারিং ড্রেক (ওয়ার্ক), স্ট্রেসড আউট (টোয়েন্টি ওয়ান পাইলটস)

সং অব দ্য ইয়ার: অ্যাডেল (হ্যালো), বিয়ন্সে (ফরমেশন), জাস্টিন বিবার (লাভ ইউরসেলফ), লুকাস গ্রাহাম (সেভেন ইয়ারস), মাইক পসনার (আই টু অ্যা পিল ইন ইবিজা)

বেস্ট নিউ আর্টিস্ট: কেলসি ব্যালারিনি, দ্য চেইনস্মোকার্স, চান্স দ্য র‌্যাপার, ম্যারেন মরিস, অ্যান্ডারসন পাক
বেস্ট অল্টারনেটিভ অ্যালবাম: ডেভিড বোওয়ি (ব্ল্যাকস্টার), পিজে হার্ভে (দ্য হোপ সিক্স ডেমোলিশন প্রজেক্ট), বন আইভার (টোয়েন্টি টু, অ্যা মিলিয়ন), ইজি পপ (পোস্ট পপ ডিপ্রেশন), রেডিওহেড (অ্যা মুন শেপড পুল)

বেস্ট পপ অ্যালবাম: অ্যাডেল (টোয়েন্টি ফাইভ), জাস্টিন বিবার (পারপাস), আরিয়ানা গ্র্যান্ড (ডেঞ্জারাস ওম্যান), ডেমি লোভেটো (কনফিডেন্ট), সিয়া (দিস ইজ অ্যাক্টিং)

বেস্ট র‌্যাপ অ্যালবাম: চান্স দ্য র‌্যাপার (কালারিং বুক), ডি লা সৌল (অ্যান্ড দ্য অ্যাননিমাস নোবডি), ডিজে খালেদ (মেজর কি), ড্রেক (ভিউজ), স্কুলবয় কিউ (ব্ল্যাঙ্ক ফেস এলপি), কানইয়ে ওয়েস্ট (দ্য লাইফ অব পাবলো)।