জমকালো পোশাকের সঙ্গে হালকা সাজ

জমকালো পোশাকের সঙ্গে সাজ ও গয়নাও মানানসই হতে হবে৷ হালকা সাজ যাঁদের পছন্দ, তাঁরা সামনের চুলগুলোকে একটু পাফ করে নিয়ে পেছনের চুলগুলোকে কার্ল করে ছেড়ে দিন৷ চুলে ছোট পুঁতির ঝুমকা বসানো টিকলি পরতে পারেন৷ আর কানে মিনা করা কাটা কাজের ঝুমকা জোড়া সাজে আনবে উৎসবের আমেজ৷ একটু পাশ্চাত্য ঘরানার পোশাকের সঙ্গে সাজে আনতে পারে এথনিক লুক৷ যেমন টেনে বাঁধা চুল, কানে টানা কুন্দন আর পুঁতির ঝুমকা, ব্যাস এইটুকু সাজই যথেষ্ট৷

চোখের পাতায় উজ্জ্বল রঙের ব্যবহার, চোখের নিচের কোণে গাঢ় কাজলের রেখা, ঠোঁটে ন্যুড লিপস্টিক পুরো সাজ পোশাকে ছড়িয়ে দেবে একটা ধ্রুপদি আমেজ৷ গারারা বা সারারার মতো পোশাকগুলোর সঙ্গে মানাবে একটু ক্ল্যাসিক বা ধ্রুপদি ধাঁচের সাজ৷
ফ্যাশন ডিজাইনার রুপো শামস জানালেন, কুন্দনের কাজ করা সোনার প্রলেপ দেওয়া গয়না জমকালো যেকোনো পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যায়৷ এ ধরনের জমকালো কাজের পোশাকের সঙ্গে চোখের পাতায় একটু সোনালি বা রুপালি শ্যাডোর ব্যবহার ভালো দেখাবে৷ লিপস্টিকের রং আর চুল বাঁধার ধরনটা নির্ভর করবে পোশাকের রং এবং নকশার ওপর৷

সারারা বা গারারা ঘরানার পোশাকের সঙ্গে কানে টানা দেওয়া ঝুমকা জোড়া পুরো সাজে ছড়িয়ে দেবে ঐতিহ্যের ছোঁয়া৷ শিফন শাড়ির সঙ্গে মাঝ বরাবর সিঁথি করে পেছনে টেনে চুলগুলোকে বেঁধে নিতে পারেন৷ এই সাজে গলায় চোকার আর চোখের কোণে থাকতে পারে হালকা শ্যাডোর ব্যবহার৷ কামিজের সঙ্গে ব্লো ড্রাই করে ছাড়া চুল আর কানে এক জোড়া ঝুমকাই ভালো দেখাবে৷