বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সততা অর্জন করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘রাজনীতিতে ভালো ছেলেমেয়েদের আসতে হবে। মেধাবীদের রাজনীতিতে আসতে হবে। তা না হলে মেধাহীনেরা মঞ্চ দখল করে নেবে।’

শনিবার দুপুরে রাজধানীর আজিমপুরে ছাত্রলীগের গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ শাখার প্রথম সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘টাকা বড় সম্পদ নয়, বড় সম্পদ হলো লেখাপড়া করা। সততা অর্জন করতে হবে। স্বপ্ন দেখতে হবে, শেখ হাসিনার মতো নেত্রী হব। মানুষ যদি সংকল্পবদ্ধ থাকে, তাহলে সবকিছু করতে পারে।’

কাদের বলেন, ‘এইচএসসির পর অনেকে ভাবেন আমি ডাক্তার হব, ইঞ্জিনিয়ার হব। কিন্তু কেউ বলে না আমি রাজনীতিক হব। রাজনীতিবিদ কেন হতে চান না? রাজনীতিতে যদি ভালো ছেলেমেয়েরা না আসে, তাহলে খারাপ লোকেরা এমপি হবে, মন্ত্রী হবে। এরাই দেশ চালাবে, ক্ষমতায় আসবে। এ জন্য মেধাবীদের রাজনীতিতে আসতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘রাজনীতিকে ঘৃণা করলে নিজের ক্ষতি হবে। একপর্যায়ে যখন দেশ খারাপের দিকে যাবে, তখন বলবেন এই দেশে আর থাকা যায় না, অন্য দেশে চলে যাব। আমার এই দেশে জন্ম, এই দেশেতে মরি। কাজেই এই দেশকে ঠিক করতে হবে।’

নেতা-কর্মীদের শুদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে কাদের বলেন, ‘রাজনীতিতে শুদ্ধাচার পালন করা উচিত। আমি যদি শুদ্ধ না হই, তাহলে আরেকজনকে শুদ্ধ হতে কেমন করে বলব। আমি যদি দুর্নীতিবাজ হই, তাহলে আরেকজনকে কেমন করে বলব। সুতরাং নিজে আগে শুদ্ধ হোন।’

গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের ছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে বাস দেওয়ার দাবি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, মে-জুনের দিকে বাসের কিছু বড় সরবরাহ আসবে। সেই সময় কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে গাড়ি দেওয়া হবে। এর মধ্যে এই কলেজেও দেওয়া হবে। গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজকে ইনস্টিটিউট করার ব্যাপারে তিনি ‘শিক্ষামন্ত্রীকে জোর দিয়ে বলবেন’ উল্লেখ করে বলেন, ‘এ জন্য শর্ত একটাই, রাস্তায় মানুষ আটকাবেন না। প্রয়োজনে আমার গাড়ি আটকাবেন। কিন্তু জনগণকে দুর্ভোগে ফেলবেন না।’

গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ ছাত্রলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি ফারজানা আক্তারের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিশাত পারভীন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন। সম্মেলন পরিচালনা করেন কলেজ শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুমা আক্তার।

সম্মেলনে কলেজের আট সদস্যের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন জেসমিন আরা রুমা আর সাধারণ সম্পাদক পাপিয়া ইসলাম। এ ছাড়া সহসভাপতি হয়েছেন ঝুন্নুন সাকি ও মরিয়ম আক্তার; যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিফ্ফাত আরা খানম ও শারমিন সুলতানা; সাংগঠনিক সম্পাদক ইফফাত সাদিয়া আহমেদ ও নাজনীন আক্তার। কমিটির বাকি সদস্যদের নাম পরে ঘোষণা করা হবে বলে সম্মেলনে জানানো হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »