রূপা বড়ুয়া »

সম্প্রতি ‘মি, মাইসেলফ অ্যান্ড মাই কিলফি’ শিরোনামে একটি সমীক্ষা প্রকাশ করা হয়। যেখানে বলা হচ্ছে, বিশ্বজুড়ে ক্রমেই বেড়ে চলছে সেলফি মৃত্যুর হার।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসেলভেনিয়ার কার্নেগী মেলন বিশ্ববিদ্যালয় এবং ভারতের দুটি কলেজের একদল গবেষক বর্তমান দুনিয়ার সেলফি প্রবণতা এবং এর ফলে যে দূর্ঘটনা ঘটছে এই বিষয়টি নিয়ে গবেষণা পরিচালিত করেন।

গবেষণায় দেখা গেছে গত সেপ্টেম্বরের আগ পর্যন্ত ২৯ মাসে ১২৭টি সেলফি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ৭৬টি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে শুধু ভারতে, ৮টি যুক্তরাষ্ট্র এবং বাকীগুলো বিশ্বের অন্যান্য দেশে।

দূর্ঘটনার কারণ হিসেবে প্রকাশিত গবেষণা ফলাফলে এছাড়াও উল্লেখ করা হয়েছে সেলফি মৃত্যু সাধারণ এখন পর্যন্ত দুইভাবে ঘটছে। একটি এককভাবে, দ্বিতীয়টি দলগতভাবে। আর সবগুলো মৃত্যুর পিছনে রয়েছে ভয়ংকর, বিপদজ্জনক আর অনিরাপদ জায়গায় সেলফি তোলার প্রবণতা।

এখন পর্যন্ত যেসব জায়গায় সেলফি মৃত্যুর ঘটনা সবচেয়ে বেশী ঘটেছে তার মধ্যে উঁচু পাহাড় এবং উঁচু ভবনের প্রান্তদেশ, পানি এবং রেলপথ উল্লেখযোগ্য। তবে গবেষকরা তাদের গবেষণায় সেলফি মৃত্যুর জন্য ৮টি কারণ খুঁজে পেয়েছেন।

উল্লেখিত প্রথম ৪টি বাদে বাকী ৪টি হচ্ছে আগ্নেয়াস্ত্র, যানবাহন, বিদ্যুৎ এবং জানোয়ারের সাথে সেলফি তোলার বাসনা।

গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, যদিও মেয়েরা সবচেয়ে বেশী সেলফি তুলতে পছন্দ করে কিন্তু ভয়ংকর জায়াগায় সেলফি তোলার ক্ষেত্রে ছেলেরাই এগিয়ে।

আর বিপদজ্জনক সেলফি তুলতে গিয়ে যারা মারা যাচ্ছেন তাদের মধ্যে ৭০ শতাংশের বয়স আবার ২৪ বা তার আশেপাশে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »