মোনায়েম খানের দখলমুক্ত জমিতে হাসপাতাল নির্মাণের দাবি

তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর ও মুসলীম লীগ নেতা মোনায়েম খানের পরিবারের অবৈধ দখল থেকে উদ্ধার করা জমিতে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য হাসপাতাল নির্মাণের দাবি উঠেছে।

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর বনানী এলাকায় মোনায়েম খানের বাড়ি এবং উদ্ধার হওয়া জমির সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানান একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, প্রজন্ম ৭১, সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামসহ বেশ কয়েকটি সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

এ সময় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের কোথাও কোনো চিকিৎসার ব্যবস্থা নেই। সরকারি হাসপাতালে একটা-দুইটা বেড আছে- সেখানে তাঁরা জায়গা পান না, করিডরে পড়ে থাকেন। কবরস্থান মুক্তিযোদ্ধাদের আছে, আমাদের দরকার এখন হাসপাতাল।’

মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক। একাত্তরের ঘাতকদের অবৈধ দখলে থাকা সব জমি ধারাবাহিকভাবে উদ্ধার করা হবে বলে জানান তিনি।

মেয়র বলেন, ‘এইখানে যে পাঁচবিঘা জমি আছে, সেখানে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সাধারণ মানুষের জন্য একটি হাসপাতাল করে দেওয়া হোক। আমরা এই দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি।’

প্রায় ৫০ বছর বনানীর ২৭ নম্বর সড়কের ১০ কাঠার এই জায়গাটি অবৈধভাবে দখলে রেখেছিল মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী মোনায়েম খানের পরিবার। দীর্ঘদিন পর গত ৪ নভেম্বর জায়গাটি দখল মুক্ত করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন।

সকালে উদ্ধার হওয়া এই জমিতে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য হাসপাতাল নির্মাণের দাবি জানায় মানববন্ধনে উপস্থিত সংগঠনগুলো। একইসঙ্গে সব যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবিও জানানো হয়