সরকারের পদত্যাগ দাবি রিজভীর

দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এমন দাবি জানান।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অভিযোগ করে বলেন, সম্প্রতি সারা দেশে  হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সরকারদলীয় অনাচার বেড়ে গেছে। সরকারের অনাচারের কারণেই সারা দেশে এই সাম্প্রদায়িক হামলা হচ্ছে। এই সরকার যত দিন ক্ষমতায় থাকবে তত দিন কোনো মানুষেরই কোনো নিরাপত্তা থাকবে না।

রিজভীর দাবি, কোনো একজন মন্ত্রী (ছায়েদুল হক) নন, এই ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য (এমপি) এবং নেতাকর্মীরাও জড়িত। এ সময় তিনি ছায়েদুল হকের সঙ্গে সরকারেরও পদত্যাগ দাবি করেন।

অন্যদিকে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ওলামা দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপিকে শর্তসাপেক্ষে সমাবেশ করতে দেওয়ায় সরকারের সমালোচনা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, ২৭টি শর্তে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশনে ৭ নভেম্বরের সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া ছিল একপ্রকার কুৎসিত রসিকতা। এটা কোন ধরনের গণতান্ত্রিক আচরণ, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) আয়োজিত আরেকটি সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, আবারো একতরফা নির্বাচনের চক্রান্ত হলে বিএনপি তা প্রতিহত করবে।