চুয়াডাঙ্গায় ত্রিমুখী সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২০

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে দুটি যাত্রীবাহী বাস ও একটি আলমসাধুর ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও ২০ যাত্রী। এদের মধ্যে ৪ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় যশোরে পাঠানো হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে স্বপন নামে একজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেলেও অপরজনের পরিচয় মেলেনি।

শনিবার সকাল ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জীবননগর সড়কের মনোহরপুর বাঁক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে পূর্বাশা পরিবহনের একটি নৈশকোচ জীবননগর হয়ে দর্শনার দিকে আসছিলো। বাসটি সকাল ১০টার দিকে জীবননগর উপজেলার মনোহরপুর বাঁকে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি বাস ও আলমসাধুর সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন আলমসাধুর চালক। আহত হন তিনটি গাড়ির ২০ যাত্রী।

খবর পেয়ে জীবননগর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করে। সেখানে নেওয়ার পর পূর্বাশা পরিবহনের হেলপার স্বপন মারা যান।

জীবননগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আলী দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহত দুইজনের মধ্যে স্বপনের পরিচয় হওয়া গেছে। তিনি ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার কেষ্টচন্দ্রপুর গ্রামের আমিদুল মণ্ডলের ছেলে। তবে, নিহত আলমসাধু চালকের পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি কেউ।