হালকা শীতে তরুণদের ফ্যাশন

এখনো শীতটা সেভাবে ঝাঁকিয়ে বসেনি। তবে সকালে যখন অফিস যান কিংবা রাতে যখন বাড়ি ফেরেন, তখন নিশ্চয়ই একটা ঠাণ্ডা অনুভব ছুঁয়ে যায়। বেশ বিচিত্র এক মৌসুম। এমন সময়ে না ভারী শীতের পোশাক পরা যায়, আর না বেছে নেয়া যায় সাধারণ পোশাক। তবে এই হালকা শীতটা কিন্তু ফ্যাশনের জন্য দারুণ। চমৎকার সব স্টাইলিশ পোশাক হতে পারে আপনার এই সময়ের সঙ্গী।

পুরুষের শীত পোশাকের মধ্যে প্রথমেই ভাবনায় আসে সোয়েটার ও জ্যাকেট। এছাড়া কিছু পোশাকের সঙ্গে শীতের চাদরও বেশ মানিয়ে যায়। তবে ভারি সোয়েটার, জ্যাকেট বা শাল কিছুই পরার সময় এখনও আসেনি।

বাজারে ঘুরলেই দেখবেন একদম হালকা জিন্স বা গ্যাবাডিনে তৈরি জ্যাকেট এরই মধ্যে চলে এসেছে। হালকা শীতে এগুলো দেখাবে দারুণ স্টাইলিশ। পাতলা উলের সোয়েটার কিংবা ফুল স্লিভ টি-শার্টও চলে এসেছে বাজারে। এগুলো একইসঙ্গে আপনাকে দেবে উষ্ণতা ও স্টাইল। শীতের সময় জ্যাকেট কিংবা সোয়েটারের সঙ্গে নানা স্টাইলের জিন্সের চলটাই সবচেয়ে বেশি। ভালো লাগবে ফর্মাল প্যান্টের সঙ্গেও।

আজকাল বিভিন্ন ধরনের জ্যাকেটের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তরুণদের মাঝে বাড়ছে হুডির জনপ্রিয়তা। গেঞ্জি কাপড় কিংবা ট্রাউজারের কাপড়ের মতো উপকরণ দিয়ে তৈরি এই হুডিগুলো শরীরের শীত নিবারণের পাশাপাশি থাকে স্টাইলিশ হুড, যা শীতের বাতাস থেকে রক্ষা করে মাথা ও কান। এছাড়া অফিসের ক্ষেত্রে ফর্মাল পোশাকের সাথে পাতলা কাপড়ের তৈরি ব্লেজারও অনেক মানানসই হবে।

একস্ট্যাসি, ক্যাটস আই, ট্রেন্ডজ, ওয়েস্টেকস এসব ব্র্যান্ডের পোশাকের দোকানে পাওয়া যাচ্ছে নানা ডিজাইনের শীতের পোশাক যা তরুণদের মন কাড়বেই। কোনোটা কৃত্রিম তন্তুর জ্যাকেট, কোনোটা উলের সোয়েটার। পাতলা কাপড়ে তৈরি জ্যাকেট ও ব্লেজারও মিলবে পছন্দসই। রঙের ক্ষেত্রে ছাই, কালো, ঘন নীল, মেরুন এই রংগুলো বেশি দেখা যাচ্ছে। বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজে চলে এসেছে পাতলা ও স্টাইলিশ শালও।