জরিমানা হলো মাশরাফি-সাব্বিরের

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে স্বস্তির এক জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে ম্যাচের ফল ছাপিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের দিকে জস বাটলারের তেড়ে যাওয়ার ঘটনা। এ ঘটনায় কেউ না কেউ যে শাস্তি পাচ্ছেন, সেটা অনুমিতই ছিল। আজ আইসিসি এক বিবৃতিতে জানিয়ে দিয়েছে সেই শাস্তির কথাও। গতকালের ঘটনায় বাংলাদেশের মাশরাফি বিন মুর্তজা ও সাব্বির রহমানের ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে। আর সতর্ক করা হয়েছে ইংলিশ অধিনায়ক বাটলারকে।

আইসিসির বিবৃতিতে আজ জানানো হয়েছে, কোড অব কন্টাক্টের ২.১. ৭ ধারা ভঙ্গের জন্য মাশরাফি ও সাব্বিরের ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ কর্তন করা হয়েছে। এ ধারায় লেখা হয়েছে, ‘কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচে কোনো ব্যাটসম্যান আউট হলে তাঁকে কোনো মৌখিক বা শারীরিক অঙ্গভঙ্গি দিয়ে খেপানো যাবে না, যাতে তিনি আগ্রাসী আচরণ করেন।’ আর বাটলারকে সতর্ক করা হয়েছে ২.১. ৪ ধারায়, ‘এমন কোনো ভাষা বা ভঙ্গি ব্যবহার করা, যা অসভ্য কিংবা অপমানজনক।’
এ ছাড়া একটি করে ‘ডিমেরিট’ পয়েন্ট যুক্ত হয়েছে তিন খেলোয়াড়ের খাতায়। আইসিসির নতুন নিয়ম অনুযায়ী, আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য এখন গুরুত্ব বিবেচনা করে ‘ডিমেরিট’ পয়েন্ট দেওয়া হয়। ২৪ মাস সময়ের মধ্যে কোনো খেলোয়াড় ৪ ‘ডিমেরিট’ পেলে ২টি নিষেধাজ্ঞা পয়েন্ট যোগ হবে। এর ফলে এক টেস্ট কিংবা দুটি ওয়ানডে বা দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিষিদ্ধ হতে হবে খেলোয়াড়কে। আফগানিস্তান সিরিজেই ২ পয়েন্ট পাওয়ায় সাব্বিরের ‘ডিমেরিট’ পয়েন্ট এখন ৩!
এই তিন খেলোয়াড়কে শাস্তি দেওয়া প্রসঙ্গে ম্যাচ রেফারি জাভাগাল শ্রীনাথ বলেছেন, ‘জস বাটলারের আউটের পর উদ্‌যাপনের সময় মাত্রা ছাড়িয়েছেন বাংলাদেশি খেলোয়াড়েরা। এতে আউট হওয়া ব্যাটসম্যান আগ্রাসী আচরণ করতে প্ররোচিত হয়েছেন। আমরা সবাই খেলায় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখতে চাই, কিন্তু সেটা প্রতিপক্ষকে খোঁচা, উত্তেজিত বা অসম্মান না করেই করা উচিত।’