র‍্যাঙ্কিংয়ের হিসাবটা কী দাঁড়াচ্ছে, কী দাঁড়াবে?

আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে হেরে বসে বড় বিপাকেই পড়ল বাংলাদেশ। সহযোগী দেশের বিপক্ষে হারের লজ্জাটা তো আছেই, সে সঙ্গে আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ রেটিং পয়েন্টও হারিয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি অংশ নেওয়ার ইঁদুর দৌড়ে যে প্রতিটি রেটিং পয়েন্ট এখন সোনার চেয়েও দামি!

গত বুধবারের হারে এক ধাক্কায় ৩ রেটিং পয়েন্ট হারিয়ে বসেছে বাংলাদেশ। ৯৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সিরিজ শুরু করা বাংলাদেশের পয়েন্ট এখন ৯৫। সে পয়েন্ট কমে ৯১ হয়ে যাবে যদি আগামীকালও হেরে যান মাশরাফি-সাকিবরা। আর সে ক্ষেত্রে আজকের পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের ফল যাই হোক না কেন, বাংলাদেশকে টপকে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কালই ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে সাত থেকে আটে নেমে যাবে বাংলাদেশ।
আর আগামীকাল সিরিজ জিততে পারলেও বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট ৯৫-ই থাকবে। আগামী কিছুদিনের জন্য র‍্যাঙ্কিংয়ের সাত নম্বর স্থানটি বাংলাদেশের জন্য নিশ্চিতই থাকবে। কিন্তু বাংলাদেশের জন্য একই সঙ্গে স্বস্তি ও অস্বস্তির কারণ হয়ে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে নেমেছে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই দুই দলের সঙ্গেই তো বাংলাদেশের লড়াই। তাই ওই সিরিজের ওপরও বাংলাদেশের ভাগ্য নির্ভর করছে অনেকাংশে।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি পাকিস্তানকে সিরিজে ধবল ধোলাই করতে পারে, সে ক্ষেত্রে সিরিজ শেষে তাদের রেটিং পয়েন্ট ৯৭ হয়ে যাবে। অর্থাৎ র‍্যাঙ্কিংয়ে সাতে উঠে যাবে ক্যারিবীয়রা। আর বাংলাদেশ চলে যাবে আটে। আর সিরিজটি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২-১ ব্যবধানেও জিতলেও বাংলাদেশের ক্ষতি নেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজ আটেই থেকে যাবে, তবে মাত্র ১ পয়েন্টের ব্যবধান থাকবে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের।
কিন্তু বাংলাদেশ কাল আফগানিস্তানের কাছে হেরে গেলেই শুরু হবে গাণিতিক সমীকরণের মাথা ঘোরানো প্যাঁচ। বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট ৯১ হয়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অধীর আগ্রহে চেয়ে থাকতে হবে পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দিকে। এবং প্রার্থনা করতে হবে পাকিস্তান যেন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধবল ধোলাই করতে পারে। সে ক্ষেত্রে পাকিস্তানের পয়েন্ট হবে ৮৯ এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেটিং পয়েন্ট হবে ৮৮। বাংলাদেশকে জায়গা হারাতে হবে না।
কিন্তু পাকিস্তান যদি ২-১ ব্যবধানেও সিরিজ জেতে সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে যাবে উইন্ডিজরা (৯১ পয়েন্ট), পাকিস্তানও ঘাড়ের কাছে নিশ্বাস ফেলবে (৮৭ পয়েন্ট)। ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি প্রথম ম্যাচ জিতেও সিরিজটি হেরে যায়, শুধুমাত্র তখনই পয়েন্টের শতভাগের পাঁচ ভাগ ব্যবধানে এগিয়ে থাকার কারণে সমান রেটিং পয়েন্ট নিয়েও বাংলাদেশ এগিয়ে থাকবে।
সবই তো তবে হতাশাময় কথাবার্তা! তবে আশার কথাটাও শুনে নেওয়া যাক। আফগানিস্তানকে কাল হারানোর পর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে যদি ২-১ ব্যবধানেও সিরিজ জেতে বাংলাদেশ, তাহলে ৯৮ পয়েন্ট হয়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে পাকিস্তানের সিরিজ নিয়ে মাথা না ঘামালেও চলবে বাংলাদেশকে। আর যদি ইংল্যান্ডকে ধবল ধোলাই করতে পারে বাংলাদেশ, তবে শ্রীলঙ্কাকে টপকে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে ষষ্ঠ স্থানেও উঠে যাবে।
আগামী বছর ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে র‍্যা​ঙ্কিংয়ে আটের মধ্যে থাকার ব্যাকুলতা সবার মধ্যেই আছে। এর বাইরে চলে গেলে যে বিশ্বকাপে যেতে খেলতে হবে বাছাই পর্ব।