উত্তরায় আশিয়ান সিটি প্রকল্পের কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা

রাজধানীর উত্তরার হাজি ক্যাম্পের পূর্ব দিকে অবস্থিত আশিয়ান সিটি প্রকল্পের উত্তরখান, দক্ষিণখানসহ চারটি মৌজার কার্যক্রমের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

প্রকল্পটি অবৈধ ঘোষণা বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের কার্যকারিতাও স্থগিত করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও রিট আবেদনকারীদের করা পৃথক দুটি আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ সোমবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

পরে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা বলেন, প্রকল্পের জমি হস্তান্তর, উন্নয়ন, বিজ্ঞাপন প্রচার, ডিক্রিসহ সব ধরনের কার্যক্রমের ওপর আদালত নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। ফলে আশিয়ান সিটি কর্তৃপক্ষ প্রকল্পটির কোনো ধরনের কার্যক্রম চালাতে পারবে না।

রিট করা সংগঠনগুলোর অন্যতম বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) আইনজীবী মিনহাজুল হক চৌধুরী বলেন, হাইকোর্টের রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করা হয়েছে। লিভ টু আপিল দায়ের না করা পর্যন্ত হাইকোর্টের রায়ে স্থগিতাদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় পেলে নিয়মিত লিভ টু আপিল করা হবে বলেও জানান এই আইনজীবী।

আদালতে বেলার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফিদা এম কামাল। সঙ্গে ছিলেন এম আমিনউদ্দিন ও মিনহাজুল হক চৌধুরী। আশিয়ান সিটির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী রোকনউদ্দিন মাহমুদ।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।

ওই প্রকল্প ২০১৪ সালের ১৬ জানুয়ারি অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। এই রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করে আশিয়ান সিটি কর্তৃপক্ষ।

চলতি বছরের ১৬ আগস্ট হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ প্রকল্প অবৈধ ঘোষণার রায় বাতিল করেন। এরপর ওই প্রকল্পের কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। প্রকল্পের কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ চেয়ে আরেকটি আবেদন করে রিট আবেদনকারী পক্ষ।

আবেদন দুটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন চেম্বার বিচারপতি। আজ আবেদন দুটির ওপর শুনানি শেষে আদেশ দেন আপিল বিভাগ।