বার্তাবাংলা ডেস্ক »

বার্তাবাংলা ডেস্ক ::হরতাল আহ্বানকারী সমমনা ইসলামী ১২ দলের কোনো তৎপরতা না থাকলেও বন্দরনগরীতে মিছিলের চেষ্টা চালিয়েছে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা।

তবে পুলিশের ধাওয়ায় মিছিল করতে পারেনি তারা।

হরতাল প্রত্যাখ্যান করে ঢাকার শাহবাগের মতো চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের গণজাগরণ মঞ্চের কার্যক্রমও শুরু হয়েছে রোববার সকাল ১০টা থেকে।

সমমনা ১২টি ইসলামী দলের ডাকা রোববারের হরতালে তেমন সাড়া দেখা যাচ্ছে না।

হরতাল আহ্বানকারীদের কোনো তৎপরতাও নেই রাজপথে।

তাদের অনুপস্থিতিতে হরতাল সমর্থনকারী জামায়াত বিচ্ছিন্নভাবে নগরীর কয়েকটি স্থানে মিছিলের চেষ্টা চালায়।

টেরী বাজারে জামায়াতকর্মীরা একটি টেম্পোতে আগুন দেয়ার চেষ্টা করে বলে জানায় কোতোয়ালি থানার ওসি মহিউদ্দিন সেলিম।

হাটহাজারীতে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনের একটি স্লিপার তুলে ফেলে হরতালকারীরা। তবে কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি বলে জানান হাটহাজারী থানার ওসি লিয়াকত আলী।

সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত নগরী ও জেলার কোথাও আর কোনো গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি।

সকাল থেকে নগরীতে ভারী যানবাহন চলাচল কম হলেও রিকশা, টেম্পো ও অটোরিকশা চলাচল স্বাভাবিক আছে।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে সংখ্যায় কম হলেও ভারী যানবাহন চলাচলও শুরু হচ্ছে।

নগরী থেকে দূরপাল্লার বাস না ছাড়লেও ট্রেন ও বিমানের সব ফ্লাইট যথাসময়ে ছেড়ে গেছে।

চট্টগ্রাম বন্দরে স্বাভাবিক কাজ হয়েছে যথারীতি, চট্টগ্রাম ইপিজেডের সব তৈরি পোশাক কারখানাতেও কাজ চলছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »