ইতিহাস বদলাতে চান মেসি

হঠাৎ করেই যেন অভিশাপ লেগেছে আর্জেন্টিনা শিবিরে। এজেকিয়েল লাভেজ্জি, অগাস্টিন ফার্নান্দেজ চোট পেয়ে ছিটকে পড়েছেন। অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, মার্কোস রোহো, নিকোলাস গাইতানকে নিয়েও আছে সংশয়। চিলির সঙ্গে ফাইনালটা যেন আর্জেন্টিনার জন্য সবদিক দিয়েই অশনিসংকেত।
এই অবস্থায় দলকে জাগিয়ে তোলার জন্য লিওনেল মেসিই তো সবচেয়ে উপযুক্ত লোক। দেশের হয়ে এখন পর্যন্ত কোনো বড় শিরোপা পাননি। পরপর দুই বছর ফাইনালে গিয়েও হেরে আসতে হয়েছে। দুই দিন আগে অবশ্য বিমানে দলের যাতায়াত–ঝক্কির কারণে আর্জেন্টিনা ফেডারেশনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়েছিলেন। কাল ইস্ট রাদারফোর্ডে সংবাদ সম্মেলনে মেসি এখন সেসব ভুলে তাকাতে চাইছেন সামনের দিকে, ‘এখন আসলে এসব নিয়ে ভাবার সময় নয়, কারণ আমরা যে লক্ষ্য পূরণ করতে চাই তার খুব কাছাকাছি আমরা চলে এসেছি। গত এক বছরে আমরা দল হিসেবে অনেক বেশি পরিণত হয়েছি। এখন আমরা ফাইনাল খেলার জন্য অধীর হয়ে অপেক্ষা করছি।’
এই ফাইনাল তো মেসির কাছে শুধু একটা ম্যাচ নয়, তার চেয়েও অনেক বেশি কিছু। কিন্তু এবার দেশের হয়ে কিছু জেতার অতৃপ্তি ঘুচবে? মেসির কণ্ঠে আশার সুর, ‘আমি ইতিহাস বদলাতে চাই, জাতীয় দলের হয়ে শিরোপা জিততে চাই। পুরো আসরেই আমরা দারুণ খেলেছি।’ তবে শিরোপা জিততে না পারলে সেটা ব্যর্থতা হবে না বলেও মনে করিয়ে দিলেন, ‘পরপর তিন ফাইনালে হেরে যাওয়া আসলে ব্যর্থতা না, বরং বড় একটা হতাশা। তবে এবার আমরা খুব বেশি চাপ নিচ্ছি না। আশা করি, আমরা এবার জিততে পারব।’