মুক্তির আগেই পাইরেসি!

ঝামেলা যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না ‘উড়তা পাঞ্জাব’-এর। বলিউড নির্মাতা অনুরাগ কাশ্যপ প্রযোজিত ও অভিষেক চৌবে পরিচালিত চলচ্চিত্রটি আগামীকাল শুক্রবারই মুক্তি পাওয়ার কথা। কিন্তু মুক্তির দুদিন আগে অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে ছবিটি।
গত সপ্তাহগুলোয় কী উত্তপ্ত বিতর্কই না হলো ছবিটির সেন্সরশিপ নিয়ে। বলিউড নির্মাতা পেহলাজ নিহালানির নেতৃত্বাধীন সেন্সর বোর্ড ছবিটির ৮৯টি দৃশ্য ছেঁটে ফেলতে বলেছিল। এমনকি সিনেমার নাম থেকে ‘পাঞ্জাব’ শব্দটি ছেঁটে ফেলার নির্দেশ আসে। ‘উড়তা পাঞ্জাব’ ছবিতে পাঞ্জাবের ভয়াবহ মাদক সমস্যা দেখানো হয়েছে। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল অভিযোগ করেছিলেন, ক্ষমতাসীন বিজেপির নির্দেশেই পেহলাজ নিহালানি ছবিটির প্রদর্শন বন্ধ করতে চাইছেন।
উল্লেখ্য, ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যে নির্বাচন আসন্ন। কংগ্রেস ও আম আদমি পার্টি—উভয় দলই এ সমস্যাকে রাজ্যের প্রধানতম হুমকি বলে চিহ্নিত করেছে। নির্বাচনের ঠিক আগে এমন একটি ছবির মুক্তি রাজ্যে ক্ষমতাসীন শিরোমণি আকালি দল ও বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিতে পারে।
ক্ষোভে ফেটে পড়ে গোটা বলিউড। শেষমেশ ১৩টি দৃশ্য কেটে এই ছবির ছাড়পত্র দেয় ভারতীয় সেন্সর বোর্ড। এরপর নির্মাতারা হাইকোর্টে যান। হাইকোর্ট একটি দৃশ্য ফেলে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দেয়। নির্ধারিত দিনেই ছবি মুক্তির প্রস্তুতি নিতে থাকে ‘উড়তা পাঞ্জাব’ দল।
কিন্তু মুক্তির ঠিক দুদিন আগে ছবিটির কয়েকটি কপি অনলাইনে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ছবিটির দুটি সংস্করণ অনলাইনে ছড়িয়েছে—একটি পুরোপুরি সেন্সরবিহীন, আরেকটি সেন্সর বোর্ড নির্দেশিত সেন্সরসহ। নির্মাতারা এখন এ ধরনের সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিচ্ছেন। ভারতের ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড কপিরাইট অ্যাক্টের অধীনে পুলিশ একটি অভিযোগপত্র দায়ের করেছে।

ছবিটির অভিনয়শিল্পীরা দর্শকদের পাইরেটেড ছবি না দেখার আহ্বান জানিয়েছেন। ছবিতে অভিনয় করেছেন শহীদ কাপুর, কারিনা কাপুর খান, আলিয়া ভাট প্রমুখ।
অন্যদিকে, পাঞ্জাবের একটি এনজিও আবার ‘উড়তা পাঞ্জাব’কে সেন্সর সার্টিফিকেট দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করছে। ছবিতে মাদকের ব্যবহার দেখানোই এনজিওটির আপত্তির কারণ। বলিউড হাঙ্গামা।