যানজটে থামকে আছে রাজধানী

যানজটে যেন থামকে আছে রাজধানী ঢাকা শহর। শবে বরাতের ছুটির পর এই যানজট অসহনীয় মাত্রায় পৌঁছে গেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ঢাকার রাজপথে কখনো দীর্ঘ সময় সিগনালে দাঁড়িয়ে আবার কখনো ধীর গতিতে গাড়ি চলতে দেখা গেছে। দুপুর পর্যন্ত যানজটের কবল থেকে মুক্তি পায়নি নগরবাসী। কয়েক ঘণ্টার পর অফিস-আদালত ছুটি হবে। তাই আজ যানবাহনগুলোর পক্ষে যানজট এড়ানো সম্ভব নাও হতে পারে বলে ঢাকার ট্রাফিক নিয়ন্ত্রকেরা মনে করছেন।

ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, রমজান মাস শুরুর আগে যান চলাচল বেড়ে যাওয়ায় এই পরিস্থিতি হয়েছে। রমজান মাস আসার আগে আগে ব্যবসা-বাণিজ্য বেড়ে যায়। মৌসুমি ব্যবসায়ীরা ঢাকায় আসতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই যানজট বাড়ে। রোজার ঈদের আগে এ ধরনের যানজট থেকে রক্ষা পাওয়া নগরবাসীর জন্য কঠিন হবে।

সকাল নয়টার আমিনবাজার থেকে মোটরসাইকেলে করে পান্থপথে অফিসের উদ্দেশে বের হন আতিকুর রহমান। ফাঁকফোকর দিয়ে বের হলেও নয় কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে তাঁর সময় লেগেছে এক ঘণ্টা।

তবে পথে দীর্ঘ সময় আটকে থাকতে হচ্ছে মিরপুর, উত্তরা থেকে মতিঝিল এলাকায় চলাচলকারীদের। একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা সৈয়দা রোকেয়া বেগম বলেন, মিরপুর ১২ নম্বরের বাসা থেকে প্রাইভেট কারে চড়ে রওনা দেন তিনি আজ সকাল আটটার দিকে। মতিঝিলে অফিসে পৌঁছান তিনি সকাল পৌনে দশটার দিকে। এর আগে গতকাল বুধবার সকালে একই সময় রওনা দিয়ে অফিসে পৌঁছান সাড়ে ১০টার পর।

রোকেয়া বেগম বলেন, মিরপুর কাজীপাড়া থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত যানজট বেশি ছিল। এর পর সোনারগাঁও হোটেল থেকে কাকরাইল গাড়িগুলো অনেকটা অলস সময় বসে ছিল।

আজ বেলা একটায় ট্রাফিক বিভাগের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানা যায়, ভিআইপি সব সড়কের যানবাহনের চাপ বেশি ছিল। এ ছাড়া প্রেসক্লাব, পল্টন, মৎস্য ভবন, ধানমন্ডি এলাকায় যানজট ছড়িয়ে গেছে।

ট্রাফিক বিভাগ সূত্র জানায়, আজ সকালে প্রধানমন্ত্রী জাপান সফরে যান। এ জন্য সকাল যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে হয়েছে।

তেজগাঁও ট্রাফিক বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজীব দাস বলেন, ঢাকার যানজট অনেকটাই সহনীয় পর্যায়ে চলে এসেছিল। কিন্তু রোববার ছাড়া এই সপ্তাহে তিন দিন অফিস-আদালত বন্ধ ছিল। ছুটির পর মানুষের ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। তা ছাড়া রমজান মাস আসার আগে প্রতি বছর এ সময় ব্যবসা-বাণিজ্য বেড়ে যায়। সব মিলিয়ে এখন যানজট বেড়েছে। তবে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সামাল দেওয়ার চেষ্টা চলছে।