তৃতীয় পর্বের পৌর নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত যারা

তৃতীয় পর্বের পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র ও সদস্য পদে নয়জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ধাপের নয় পৌরসভায় প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় শেষ হয়েছে সোমবার।

তফসিল অনুসারে নরসিংদী জেলার ঘোড়াশাল ও রায়পুরা, লক্ষ্মীপুর জেলার লক্ষ্মীপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা, নোয়াখালী জেলার নোয়াখালী ও সেনবাগ, ফেনীর ছাগলনাইয়া, কক্সবাজারের টেকনাফ ও খাগড়াছড়ির রামগড় পৌরসভায় মেয়র, সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ভোট হওয়ার কথা আগামী ২৫ মে।

বুধবার ইসির নির্বাচন সমন্বয় ও ব্যবস্থাপনা শাখার সহকারী সচিব রাজীব আহসান জানান, বৈধ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় পার হওয়ার পর টেকনাফ পৌরসভার মেয়র পদে এবং ঘোড়াশাল পৌরসভার ১, ২, ৩, ৫, ৭ ও ৮ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড ও কসবার ৭ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সদস্য পদের একক প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

টেকনাফের মেয়র পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত প্রার্থী নৌকা প্রতীকের; বাকি পদে ব্যালটে ভোট হবে।

তিনি জানান, গত ২৮ এপ্রিল মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিনে মেয়র পদে ৪২ জন প্রার্থী ছিলেন। বাছাই ও প্রত্যাহার শেষে ৯ পৌরসভায় মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রয়েছেন ২৬ জন। এরমধ্যে দলীয় ২১ জন ও পাঁচজন স্বতন্ত্র। সাধারণ সদস্য পদে ৩১৫ জন ও সংরক্ষিত পদে ৭০ জন প্রার্থী রয়েছেন।

এসব পৌরসভায় ভোটার ৩ লাখ ১৩ হাজার ৬৯১ জন এবং ভোটকেন্দ্র ১৩৩টি ও ভোটকক্ষ ৮৯৭টি।

স্থানীয় সরকারের এই নির্বাচনে এবারই প্রথম মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হচ্ছে।

প্রথম পর্বে গত ৩০ ডিসেম্বরের ভোটের পর ২৩৪ পৌরসভার মধ্যে ২২৭টির ফল ঘোষণা হয়েছে। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা ১৭৭ পৌরসভায় ও বিএনপির প্রার্থীরা ২২ পৌরসভায় জয় পেয়েছেন। জাতীয় পার্টির একজন মেয়র হয়েছেন। আর ভোটে যে ২৬ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হন তার ১৮ জনই ছিলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী।

দ্বিতীয় পর্বে গত ২১ মার্চের ভোটে ১০ পৌরসভার সবকটিতে জয় পান ক্ষমতাসীন দলটির প্রার্থীরা।