তিন বছর পেরিয়ে গেলেও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারছে না রানা প্লাজা বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্থরা

বার্তাবাংলা রিপোর্ট:: তিন বছরেও স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেননি রানা প্লাজা বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্তরা। দিনটি ফিরে এলে এখনও ভয়ে আঁতকে ওঠেন অনেকে। জীবনের অমূল্য সম্পদ হারিয়ে হন ক্ষুব্ধ। প্রিয়জন হারানোর বেদনাও পোড়ায় অনেককে। এধরনের দুর্ঘটনার পুনরাবৃত্তি চান না তারা। তারা চান ঘটনার সুষ্ঠু বিচার ও পুনবার্সন।

ডান হাতটা কাটা পড়েছে রানা প্লাজা ট্র্যাজেডিতে। তিন বছর হলো এক হাতেই সবকিছু সামলাচ্ছেন রিক্তা। ক্ষতিপূরণের টাকায় সংসারে আয়ের নতুন পথও তৈরি হয়েছে। তবে হাঁপিয়ে উঠেছেন তিনি।
রিক্তার মতো সবকিছু বোঝার বয়স হয়নি সেলিনার। ১৬ বছর বয়সেই বিধবা। স্বামীর পাশাপাশি হারিয়েছেন বড় বোনকেও।

মেয়ের এই পরিনতিতে পাথর হোসেন মিয়া। রানা প্লাজা বিপর্যয় এই মানুষগুলোর কাছে না ভোলার এক ইতিহাস।

সংগ্রামী এই মানুষেরা চান, দুঃসহ সেই ঘটনায় হারিয়ে যাওয়া স্বজনদের স্মৃতিচিহ্ন যেনো মুছে না যায়।