বিয়ের বার্ষিকীতেই বিয়ের খবর!

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: ইমনের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে হঠাৎ পোস্ট করা হলো তাঁর সঙ্গে এক মেয়ের ছবি। এর নিচে ইংরেজিতে লেখা, ‘বিয়ের বার্ষিকীর শুভেচ্ছা…’ এমনই কিছু কথা। এর পরই শুরু হলো আলোচনা। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ইমন নিজেই সব রহস্যের জট খোলেন। বলেন, ‘ফেসবুকে দেওয়া ছবিটি আমার স্ত্রী আয়শা ইসলামের। আজকের দিনটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এদিনেই আমাদের বিয়ে হয়েছিল। তাই এই দিনেই দুজনের ছবি ফেসবুকে দিলাম।’
বিয়েটা তাহলে কত আগে হয়েছিল? ইমন জানালেন, ২০০৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি। প্রেমের সম্পর্ক থাকলেও পারিবারিকভাবেই সেদিন দুজনের বিয়ে হয়। অর্থাৎ সাত বছর আগে বিয়ে করলেও এ খবরটি এত দিন আড়ালেই রাখেন ইমন। কেন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ওই সময়টায় আমি সবে চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছি। চলচ্চিত্রজগতের কিছু মানুষ আমাকে বিয়ের খবর প্রকাশ না করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। নিজের ক্যারিয়ারের ক্ষতি হতে পারে—এমন আশঙ্কায় আমিও তখন এ বিষয় আর প্রকাশ করিনি। এ ছাড়া আয়শা নিজেও পড়ালেখা নিয়ে ব্যস্ত ছিল। ও নিজেও বিয়ের খবরটি প্রকাশ করার পক্ষে ছিল না।’ তাহলে হঠাৎ এত দিন পর এ খবর প্রকাশের কারণ কী? ‘জীবনের এত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টিকে এত দিন ধরে চেপে রাখা মানসিক অশান্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। স্বাভাবিক জীবপনযাপন বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল। তাই বিষয়টি আর আড়াল করতে চাইছি না।’ বললেন ইমন।
বিয়ের খবর তো গেল। তবে ইমন জানাতে চান আরও কিছু। বললেন, ‘শুধু আয়শা নয়, আমাদের পরিবারে আছে আরও দুই খুদে সদস্য। দুই ছেলে সামিন ও শায়ান। আমাদের জন্য সবার কাছে দোয়া চাইছি।’