তেল অপসারণে ৫০০ নৌকা ব্যবহারের নির্দেশ

বার্তাবাংলা ডেস্ক :: সুন্দরবনে ছড়িয়ে পড়া ফার্নেস তেল অপসারণে ৫০০ নৌকা ব্যবহারের  নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব প্রধান বন সংরক্ষক মো. ইউনুস আলীকে এ নির্দেশ দেন। এ ছাড়া ওই এলাকায় নৌ-চলাচল স্থায়ীভাবে বন্ধে নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়েকে অনুরোধ জানিয়েছে আন্ত:মন্ত্রণালয় সভা।

রোববার দুপুরে আন্ত:মন্ত্রণালয় সভা শেষে উপমন্ত্রী সাংবাদিদের এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, এ পর্যন্ত সনাতন পদ্ধতির মাধ্যমে ২৩ হাজার লিটার তেল সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে বন বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্থানীয় সিএমসি (কো-ম্যানেজমেন্ট কমিটি) ও টাইগার রেসপন্স টিমের মাধ্যমে জনগণকে সম্পৃক্ত করে ফার্নেস অয়েল স্থানীয়ভাবে সংগ্রহের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। বন বিভাগের উদ্যোগে প্রায় ১২০টি  ইঞ্জিন চালিত নৌকা ও ২০০ জন শ্রমিক দিয়ে ফার্নেস অয়েল সংগ্রহের কার্যক্রম শুরু করা হয়। এখন পর্যন্ত ২৩ হাজার লিটার ফার্নেস অয়েল সংগ্রহ করে বিপিসির নিকট স্থানীয় জনগণ বিক্রি করেছে। এ প্রক্রিয়ায় ফার্নেস অয়েল সংগ্রহের কাজ চলছে। ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী নদীর উভয় তীরে ১৪টি খালের মুখে জাল দিয়ে ফার্নেস অয়েল ঢোকা বন্ধ করা হয়েছে।

এ ছাড়া বন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ওই এলাকার দিন মজুরদের ত্রান ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানানো হয়েছে।
জ্যাকব বলেন, তেল অপসারণে স্থানীয় পদ্ধতি ব্যবহার করার জন্য শ্রমিকদের চর্ম রোগ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছেন। সেজন্য আমরা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জরুরি চিকিৎসা  সেবার আবেদন করছি।

উল্লেখ্য, ৯ ডিসেম্বর পূর্ব সুন্দরবনের শ্যালা নদীর চাঁদপাই রেঞ্জে মালবাহী জাহাজের ধাক্কায় ‘ওটি সাউদার্ন স্টার সেভেন’ নামের একটি তেলবাহী ট্যাংকার ভোরে ডুবে যায়। ট্যাংকারটি গোপালগঞ্জের একটি বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য খুলনার পদ্মা অয়েল ডিপো থেকে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬৬৪ লিটার ফার্নেস অয়েল নিয়ে গোপালগঞ্জে যাচ্ছিল।