কৃষকদের বেশি সচেতন হতে হবে-প্রধানমন্ত্রী

বার্তাবাংলা রিপোর্ট :: পানির দেশে এক টুকরো জমিও পড়ে থাকবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার বিকেলে রাজধানীর ওসমানী স্থৃতি মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু কৃষি পদক’ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী রাসায়নিক সামগ্রীর পরিবর্তে ফসল উৎপাদনে জৈব সারের ব্যবহার বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে কৃষকেরা রাসায়নিক সার বিশেষ করে ইউরিয়া সারের ওপর বেশি নির্ভরশীল। এসব রাসায়নিক সার ব্যবহারে জমির গুণাগুণ নষ্ট হয়। তাই জমির গুণাগুণ ধরে রাখতে জৈব সার ব্যবহার করা প্রয়োজন। এ জন্য কৃষকদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে। প্রয়োজনে জমির মাটি পরীক্ষা করে সে অনুযায়ী জৈব ও গুটি ইউরিয়া সারও ব্যবহার করা যেতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আগে বরিশালকে দেশের শস্যভাণ্ডার বলা হতো। কিন্তু এখন দেখা যায়, উত্তরবঙ্গে বেশি ফসল উৎপাদন হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের কৃষকরা সেচের ওপর বেশি নির্ভর করে বোরো ফসল উৎপাদন করে থাকেন। এ ক্ষেত্রে বোরো মৌসুমের ওপর বেশি নির্ভরশীল না হয়ে আউশ-আমন মৌসুমে চাষাবাদ বাড়াতে পরামর্শ দেন তিনি। অল্প সেচে অধিক উৎপাদন পেতে ভুট্টা, গম ও তেলবীজ উৎপাদনের ওপরই গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল ছিল দেশের জন্য স্বর্ণযুগ। দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছিল। দুর্ভাগ্য, ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় আসার পর দেশ সব দিক থেকে পিছিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে আবার তারা জয়ী হন ও ২০০৯ সালে সরকার গঠন করেন। এরপর তারা বঙ্গবন্ধু পুরস্কার তহবিল পুনর্গঠন করেন। তারপর থেকে নিয়মিত পুরস্কার দিয়ে যাচ্ছেন।