প্রয়োজনে ফেসবুক বন্ধ করবেন শিক্ষামন্ত্রী

বার্তাবাংলা রিপোর্ট ::  অসদাচরণ এবং শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে গত জুলাইয়ে ৬ মাসের জন্য সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করে বিসিবি। বিদেশি লিগের খেলার প্রশ্নে আগামী বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাকিবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা কেটে গেলেও বিদেশি লিগে তার ওপর নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রয়েছে।

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলছেন সাকিব। রাজকীয় প্রত্যাবর্তন হয়েছে তার। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ব্যাটে-বলে অসাধারণ পারফর্ম করায় ম্যান অব দ্য সিরিজ নির্বাচিত হন তিনি।

এরপর ওয়ানডেতেও তার তা-ব চলছেই। প্রথম ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি ও চার উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার নিজের দখলে নেন। সাকিবের এমন পারফরম্যান্সে অভিভূত বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তরা। আর তাতে বরফ গলতে শুরু করেছে বোর্ডেও। বিদেশি লিগেও খেলার ব্যাপারে নতুন করে সবুজ সংকেত পেতে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান।
বিদেশি লিগে খেলার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বিসিবির কাছে আবেদন করেছিলেন সাকিব। তবে এখনই কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি বিসিবি। চলমান জিম্বাবুয়ে সিরিজের পরই বোর্ড মিটিংয়ে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বিদেশি লিগে খেলার ওপর যে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সেটা তুলে নেওয়ার ব্যাপারে কয়েকদিন আগে সাকিব বিসিবির কাছে আবেদন করেছে। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে বোর্ড মিটিংয়ে। জিম্বাবুয়ে সিরিজের পরই বোর্ডের মিটিং রয়েছে। আশা করি ওই মিটিংয়েই সাকিবের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে।’